সেমাই খাওয়ানোর নাম করে নাতনিকে ধর্ষণ

সেমাই খাওয়ানোর নাম করে নাতনিকে ধর্ষণ
সেমাই খাওয়ানোর নাম করে নাতনিকে ধর্ষণ

ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি
ঈদের সেমাই খাওয়ানোর নাম করে বাড়িতে ডেকে ৮ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে ৫০ বছর বয়সী আব্দুস ছালামের বিরুদ্ধে। বুধবার দুপুরে নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার পর ওই শিশুটিকে রক্তাক্ত অবস্থায় জয়পুরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার বিকেলে অভিযোগ পাওয়ার পর থানা পুলিশ আটক করে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, উত্তর দূর্গাপুর গ্রামের আব্দুস ছালাম ঈদের নামাজ আদায় করে তৃতীয় শ্রেণি পড়ুয়া প্রতিবেশী শাহিনুরের মেয়ে (৮) সম্পর্কে আব্দুস সালামের নাতনি কে সেমাই দেওয়ার নাম করে বাড়ি নিয়ে যায়। এরপর ঘরের মধ্যে মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের পর ভয় দেখিয়ে ওই শিশুটিকে বাড়ি পাঠান আব্দুস ছালাম। শিশুটি বাড়ির পার্শ্বে পুকুর পাড়ে ভয়ে বসে থাকে। এক পর্যায়ে পরিবারের লোকজন রক্তক্ষরণের বিষয়টি দেখতে পেয়ে জিজ্ঞাসা করলে শিশুটি ঘটনা খুলে বলে।

এ সময় প্রতিবেশীরা জানতে পেরে আব্দুস ছালামকে আটক করে থানা পুলিশে সোপর্দ করেন। শিশুটিকে উদ্ধার করে দ্রুত ধামইরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। শিশুটির রক্তক্ষরণ বন্ধ না হওয়ায় এবং শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে জয়পুরহাট সদর হাসপাতাল ও পরে শহীদ জিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, বগুড়ায় স্থানান্তর করা হয়।

ধামইরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাকিরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘এ ঘটনায় থানায় ধর্ষণের মামলা দায়ের করা হয়েছে। আসামি আব্দুস ছালামকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’

আপনার মতামত লিখুনঃ