সিগারেটের অবৈধ বিজ্ঞাপন প্রদর্শন

সিগারেটের অবৈধ বিজ্ঞাপন প্রদর্শন
সিগারেটের অবৈধ বিজ্ঞাপন প্রদর্শন

নিজস্ব প্রতিবেদক: তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন অমান্য করে তামাকপণ্যের দোকানে অবৈধ বিজ্ঞাপন প্রদর্শনের দায়ে নীলফামারীতে তিন তামাক বিক্রেতাকে ৩ হাজার ৬ শত টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত। গত রবিবার দুপুরে জেলার সদর উপজেলার বাবড়ীঝাড় মোড় বাজারে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাহবুব হাসানের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাহবুব হাসান জানান, ওই এলাকার বাবড়ীঝাড় মোড় বাজারে এক পান-সিগারেট ও কনফেকশনারী দোকানে খালি সিগারেট প্যাকেটের মাধ্যমে ডিসপ্লে (বিজ্ঞাপন) প্রদর্শন করার দায়ে এ জরিমানা করা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার (নিয়ন্ত্রণ) আইনের (২০০৫, সংশোধিত আইন-২০১৩ ইং) ৫ এর (ছ) ধারায় স্পষ্ট উল্লেখ আছে, তামাকজাত দ্রব্যের বিক্রয়স্থলে যেকোনো উপায়ে তামাকজাত দ্রব্যের বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করা যাবে না। আইনের এই ধারা লঙ্ঘন করে সিগারেটের ডামি প্যাকেটের মাধ্যমে অবৈধ বিজ্ঞাপন প্রদর্র্শনের দায়ে একটি কনফেকশনারীর মালিককে ৩ হাজার টাকা এবং দুই তামাক বিক্রেতাকে তিন শত টাকা করে সর্বমোট ৩ হাজার ৬ শত টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এসময় দোকানগুলোর ডামি প্যাকেটের ডিসপ্লে বোর্ডের গ্লাস ভেঙ্গে ফেলা হয় ও খালি প্যাকেটগুলো ধ্বংস করা হয়। ভ্রাম্যমান আদালত চলাকালে জেলার সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্যানিটারি ইন্সপেক্টর মো. আল-আমিন রহমান এবং সদর থানা ও পুলিশ লাইনের পুলিশ সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

নীলফামারীতে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়নে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করায় সংশ্লিষ্ট ম্যাজিস্ট্রেটের ভূয়শী প্রশংসা ও তাকে ধন্যবাদ জানিয়ে ‘এ্যাসোসিয়েশন ফর কম্যুনিটি ডেভেলপমেন্ট-এসিডি’র তামাক নিয়ন্ত্রণ প্রকল্পের প্রোগ্রাম ম্যানেজার মো. শাহীনুর রহমান বলেন, ‘সারাদেশের লাখ লাখ তামাকপণ্য বিক্রয়স্থলে (তামাকের দোকান) তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের ৫এর (ছ) ধারা লঙ্ঘন করে অবৈধ বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করা হচ্ছে। অথচ এমন অবৈধ বিজ্ঞাপন প্রদর্শন বন্ধে প্রশাসনের জরুরি উদ্যোগ আমাদের চোখে পড়ে না। নীলফামারী জেলা প্রশাসকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মহোদয়ের মত দেশের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ নিজেরা স্বপ্রণোদিত জনস্বার্থে এমন অভিযান পরিচালনা করলে খুব দ্রুত তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়ন করা সম্ভব।’

আপনার মতামত লিখুনঃ