র‌্যাবের পৃথক অভিযানে ৪ মন গাঁজা ২৪৫ বোতল ফেনসিডিলসহ গ্রেপ্তার-৬

র‌্যাবের পৃথক অভিযানে ৪ মন গাঁজা ২৪৫ বোতল ফেনসিডিলসহ গ্রেপ্তার-৬

নজরুল মৃধা রংপুর: রংপুর র‌্যাব পৃথক পৃথক অভিযানে প্রায় প্রায় ৪ মন গাঁজা ও ২৪৫ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করেছে। এসময় নারীসহ ৪ মাদক ব্যবসায়ী এবং দেশীয় অস্ত্রসহ আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ২ সদস্য গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে রংপুর নগরীর পানি উন্নয়ন বোর্ডে র‌্যাব কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এতথ্য জানান র‌্যাব-১৩ এর কমান্ডার রেজা আহমেদ ফেরদৌস।

র‌্যাব জানায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ২৬ সেপ্টেম্বর গভীর রাতে রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার বড়দরগা ’সংলগ্ন রংপুর -বগুড়া মহাসড়কের সামেরহাট মোড়ে ১টি ছোট কাভার্ড ভ্যানে তল্লাশি করে বিশেষ পদ্ধতিতে রক্ষিত ৯৮ কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়।

এসময় মাদক ব্যবসায়ী কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ি উপজেলার মোঃ আইয়ুব আলীর পুত্র মোঃ সুজন মিয়া (২১)কে এবং রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার মোঃ তাজুল ইসলামের পুত্র মো. আরিফ হোসেন (২৬) গ্রেপ্তার করা হয়।

তাদের দেয়া তথ্যের সূত্র ধরে কাউনিয়ার চন্ডিপুর এলাকার মৃত বেলাল হোসেনের পুত্র মাদক ব্যবসায়ী আবুল হোসেনের বাড়ির উঠানে রক্ষিত ট্রাকের বডিতে বিশেষ পদ্ধতিতে ফিটিং অবস্থায় এবং ১টি স্টীল ট্রাংকে হতে ৫৯ কেজি গাঁজা এবং ২৪৫ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয় ।

এসময় মাদক ব্যবসায়ী আবুল হোসেন (৫০) এবং তার স্ত্রী আলেয়া বেগম (৪৩) কে গ্রেপ্তার করা হয়। এই দুইটি পৃথক অভিযানে ৪ জন মাদক ব্যবসায়ী আটক এবং ১৫৭ কেজি গাঁজা ও ২৪৫ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত চারজন আসামী তাদের অপরাধ স্বীকার করেছে।

অপরদিকে র‌্যাব-১৩, রংপুর এর সিপিএসসি ক্যাম্পের আভিযানিক দল বুধবার মধ্যরাতে দিনাজপুর জেলার নবাবগঞ্জ উপজেলার ভাদুরিয়া-দাউদপুর সড়কে বিদেশী রিভলবার ১টি সদৃশ নকল অস্ত্র, ১টি চাপাতি, ১টি ছোরা, ৩টি দা সহ আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সক্রিয় ২ সদস্যকে গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হল দিনাজপুর ঘোড়াঘাট এলাকার মৃত আব্দুল লতিফের পুত্র শরিফুল ইসলাম(৪৪) এবং একই উপজেলার কোরবান আলীর পুত্র ইকবাল হোসেন(৩৫)। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা র‌্যাবকে জানায় যে, তারা সহযোগীদের নিয়ে দিনাজপুর, রংপুর, গাইবান্ধাসহ বিভিন্ন স্থানে ডাকাতি করতো এবং কখনো কখনো লোকজনকে অপহরণপূর্বক গভীর জঙ্গলে জিম্মি করে মুক্তিপন আদায় করত।

আপনার মতামত লিখুনঃ