রংপুর চিনিকলের বিরোধপূর্ণ জমি নিয়ে মারামারি

রংপুর চিনিকলের বিরোধপূর্ণ জমি নিয়ে মারামারি
রংপুর চিনিকলের বিরোধপূর্ণ জমি নিয়ে মারামারি

গোবিন্দগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি
গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে রংপুর চিনিকলের নিয়ন্ত্রনে থাকা সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামারের বিরোধপূর্ণ জমি নিয়ে চিনিকল শ্রমিক ও সাঁওতালদের মাঝে মারামারির ঘটনার ঘটেছে। বুধবার দুপুর আনুমানিক ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এতে জমি পাহাড়ায় নিয়োজিত আনছার সদস্য সহ পাঁচজন আহত হন। আহতরা হলেন- আনছার সদস্য জুয়েল, চিনিকলের পিসি আব্দুর রাজ্জাক, ট্রাক্টর চালক তোতা মিয়া, জয়নাল ও মোস্তাফিজুর রহমান। ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

জানা গেছে, রংপুর চিনিকলের সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামারের বিরোধপূর্ণ জমিতে বুধবার দুপুর আনুমানিক ১২টার দিকে চিনিকল কর্তৃপক্ষ পুলিশের উপস্থিতিতে জমি চাষ করতে যায়। এসময় সাঁওতালরা নিজেদের বাপ-দাদার জমি দাবী করে তাদেরকে জমি চাষে বাধা প্রদান করেন। এরপর বাধা উপেক্ষা করে চিনিকলের শ্রমিকরা চাষাবাদ চালিয়ে যায়। এতে উভয়পক্ষের মাঝে বাক বিদন্ডার এক পর্যয়ে মারামারির ঘটনা ঘটে। এতে চিনিকলের জমি পাহাড়ায় নিয়োজিত আনছার সদস্য সহ পাঁচজন আহত হন। আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

উক্ত ঘটনায় আনছার সদস্য আসাদুল অভিযোগ করে বলেন, পুলিশ ও তাদের উপস্থিতিতে চিনিকলের শ্রমিকরা জমি চাষ করছিল। এসময় হঠাৎ করে সাঁওতালরা দলবদ্ধভাবে এসে জমি চাষে বাধা দেয়। এরপর জমি চাষ করতে গেলে সাঁওতালরা চিনিকল শ্রমিকের উপর আক্রমন করে। তাদের আক্রমন প্রতিহত করতে গেলে আনছার সদস্য সহ পাঁচজন আহত হয়।

চিনিকল শ্রমিকের উপর আক্রমনের অভিযোগ অস্বীকার করে সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্ম ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটির সভাপতি ড. ফিলিমন বাস্কে বলেন, সেখানে কোনো ধরনের মারামারির ঘটনা ঘটেনি।
গত মঙ্গলবার উপজেলা নির্বাহী অফিসার রামকৃষ্ণ বর্মণ উভয়পক্ষকে উপজেলা মিলনায়তনে আলোচনার জন্য ডাকেন। সেখানে চিনিকল কর্তৃপক্ষের কথা সন্তোষজনক না হওয়ায় সাঁওতালরা সভা ত্যাগ করেন। তিনি আরও বলেন, চিনিকল কর্তৃপক্ষ তাদেরকে হয়রানীর উদ্দেশ্যে বিভিন্ন ইসু খুজছে। আলোচনার আগেই চিনিকলের শ্রমিকরা জমি চাষ করতে গেলে সাঁওতালরা সেখান থেকে তাদের চলে যেতে বলে। সেখানে কোনো মারপিটের ঘটনা ঘটেনি।

গোবিন্দগঞ্জ থানার ওসি মেহেদী হাসান জানান, রংপুর চিনিকল কর্তৃপক্ষ সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামারের জমি চাষ করতে যায়। সেখানে জমি চাষে সাঁওতালা বাধা প্রদান করে এবং পাঁচজনকে পিটিয়ে আহত করে। চিনিকলের লোকজন আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করিয়ে দেয়। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রামকৃষ্ণ বর্মণ পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে।

আপনার মতামত লিখুনঃ