রংপুর এবং দিনাজপুর অঞ্চলের কৃষি মন্ত্রনালয়াধীন দপ্তর প্রধানগনের মতবিনিময় সভা

রংপুর এবং দিনাজপুর অঞ্চলের কৃষি মন্ত্রনালয়াধীন দপ্তর প্রধানগনের মতবিনিময় সভা

৫ আগষ্ট কৃষি মন্ত্রনালয়ের সচিব জনাব মো. নাসিরুজ্জামান মহোদয়ের সভাপতিত্বে রংপুর ও দিনাজপুর অঞ্চলের কৃষি মন্ত্রনালয়াধীন দপ্তর প্রধানগণের সাথে বন্যা পরিস্থিতি ও বন্যা পরবর্তী কৃষকদের ক্ষয়ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়ার নিমিত্তে চলমান আমন মৌসুমে পরিকল্পনা প্রনয়ণ ও বাস্তাবায়ন কলাকৌশল বিষয়ে নীলফামারীর জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে সকাল ১১ টায় দিনব্যাপী মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের দুই অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক মহোদয়দয়ের উপস্থিতিতে আট জেলা হতে আগত উপপরিচালক, ডিএই, মহোদয়গণ নিজ নিজ জেলার কার্যক্রম উপস্থাপন করেন। এছাড়া বিভিন্ন গবেষনা প্রতিষ্ঠান ও মাকেটিং বিভাগ, কৃষি তথ্য সার্ভিসসহ উপস্থিত সকল কর্মকর্তাগণ তাদের স্ব-স্ব কার্যক্রম উপস্থাপন পূর্বক প্রতিবেদন তুলে ধরেন।

কর্মকর্তারা উল্লেখ করেন যে, ইতোমধ্যে ভাসমান বা দাপক বীজতলা, কমিউনিটি বীজতলা, বাফার বীজতলার কার্যক্রম বাস্তবায়ন হয়েছে যা পরবর্তীতে উৎপাদিত চারা কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে। এছাড়া বিভিন্ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান যেমন- ধান গবেষণা ইনষ্টিটিউট, বিনা উপকেন্দ্র রংপুর এর সহযোগীতায় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে বীজ সহায়তা করছেন ।

সব ধরনের সহযোগিতা দেওয়ার জন্য মাঠ পর্যায়ের সকল কর্মকর্তা তৎপর রয়েছেন। উনারা আর ও জানান যে, মন্ত্রনালয়ের নিদের্শনা অনুযায়ী সব ধরনের সহযোগিতা দেওয়ার জন্য মাঠ পর্যায়ের সকল কর্মকর্তা তৎপর রয়েছে ।

কৃষি তথ্য সার্ভিস, রংপুর বন্যা ও বন্যা পরবর্তী কৃষক ভাইদের করনীয় বিষয় বাংলাদেশ বেতার রংপুর এর মাধ্যমে বিজ্ঞাপন ও সরাসরি লাইফ প্রোগ্রাম প্রচারের পাশাপাশি কৃষকদের মাঝে বিনা মূল্যে লিফলেট বিতরন করা হয়।সচিব মহোদয় কৃষিকে কৃষি বান্ধব এবং লাভজনক ফসল চাষ করার ব্যাপারে কৃষকদের উদ্বদ্ধু করার জন্য কর্মকতাদের দিক নিদের্শনা দেন।

যেমন- আগাম আলু, সরিষা, গম, ভুট্টা, সূর্যমূখী, ইত্যাদি। কমিউনিটি বেজড বা কমপ্যাক্ট এলাকা ভিত্তিক ফসল চাষাবাদ করার জন্যও কৃষককে উদ্বদ্বু করতে পরামর্শ দেন যাতে কৃষকরা চাষাবাদ করে লাভবান হয়। এছাড়া এসডিজি-২ বাস্তবায়নে ক্রাপিং প্যার্টান পরিবর্তনসহ ফসল উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য নির্দেশনা দেন।

পাশাপাশি তিনি নিরাপদ শাকসবজি তথা নিরাপদ খাদ্য উৎপাদন বিষয়ে গুরুত্বরোপ করেন। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকসহ সকল কৃষকদের কৃষি উন্ন্য়নে তথা কৃষকের জীবনমান পরিবর্তন ঘটাতে বর্তমান সরকার তথা কৃষি মন্ত্রনালয় সব ধরনের সহযোগিতা দিয়ে থাকবে।

সংশ্লিষ্ট সকল কর্মকর্তা সম্মলিতভাবে এসডিজি-২ বাস্তবায়নে কাজ করবেন বলে সভায় জানান । সভাপতি মহোদয় সবাইকে ধন্যবান জ্ঞাপন করে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

আপনার মতামত লিখুনঃ