মোবাইল মেরামতকে কেন্দ্র করে পিটিয়ে হত্যা

মোবাইল মেরামতকে কেন্দ্র করে পিটিয়ে হত্যা

মো:সবুজ ইসলাম,রানীশংকৈল প্রতিনিধিঃ
ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল পৌর শহরে মোবাইল মেরামতকে কেন্দ্র করে মানিক দাস(৪৫) নামের এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত শনিবার রাত প্রায় নয়টায় পৌরশহরের বন্দর বড়ব্রীজ সংলগ রুস্তম মার্কেটে এ ঘটনা ঘটে ।

এঘটনায় পুলিশ ঐ রাতেই ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে সহোদর গ্রামের আইনুল হকের ছেলে আনোয়ার হোসেন ও একই গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে জিয়াউর রহমান কে আটক করে।

প্রত্যক্ষদশী ও থানা সুত্রে জানা যায়, নিহত মানিক উপজেলার মৃত কসাই ঝড়–য়া দাসের পুত্র। পৌরশহরের রুস্তম মার্কেটে ঝড়–য়া দাসের পুত্র ভূদেব এর মা মোবাইল সার্ভিস সেন্টার এ সহোদর গ্রামের মো: আইনুল এর ছেলে এনজিও কর্মী আনোয়ার(২৮) মোবাইল মেরামতের জন্য দেয়।

মোবাইল মেরামত শেষে আনোয়ারকে মোবাইলটি দিলে মোবাইল ঠিক হয়নি বলে মোবাইল মেকার ভুদেবকে অভিযোগ করেন আনোয়ার। তবে মোবাইল মেকারের দাবী মোবাইলের যে সমস্যা দেওয়া হয়েছিলো তা ঠিক করা হয়েছে তবে মেকারের এ দাবী মানতে নারাজ মোবাইল মালিক আনোয়ার ।

এ নিয়ে দুজনে তর্কে জড়ালে তাদের দু’জনের তর্ক- বিতর্কের চিৎকার শুনতে পেয়ে দোকানদার ভূদেব এর বড় ভাই মানিক দাস এগিয়ে আসে পক্ষান্তরে এক পর্যায়ে এনজিও কর্মী আনোয়ারের পাশে এসে দাড়ায় তার গ্রামের ছেলে জিয়াউর রহমানসহ অজ্ঞাত কয়েকজন।

পড়ে দুপক্ষেই তুমুল বির্তকে জড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে ঘটনাটি হাতাহাতি থেকে মারপিটে রুপন্তারিত হয়। পড়ে ভুদেব ও তার ভাই মানিক দাস চরম ভাবে মারপিটে আঘাত প্রাপ্ত হয়ে ঘটনাস্থলেই মানিক দাস মাটিতে লুটিয়ে পড়ে মারা যায় ।

ঘটনার বেগতিক দেখে আসামীরা সেখান থেকে সটকে পড়ে। পড়ে পুলিশ ঘটনা স্থলে গিয়ে লাশ উদ্বার করে থানায় নিয়ে আসে এবং অভিযান চালিয়ে আনোয়ার ও জিয়াউর রহমানকে আটক করে। মৃত ব্যক্তির লাশটি ময়না তদন্তের জন্য ঠাকুরগাঁও মর্গে পাঠানো হয়েছে। অপরদিকে আসামীদের বিরুদ্বে বাদী হয়ে ভুদেব একটি হত্যা মামলা করে। মামলা নং ৯।

রাণীশংকৈল থানা অফিসার ইনচার্জ আব্দুল মান্নান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ বিষয়ে একটি মামলা হয়েছে ঘটনার সাথে জড়িত ২ জনকে গ্রেফতার করে ঠাকুরগাঁও জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুনঃ