মেসেঞ্জারের মাধ্যমে ভাইরাস আক্রান্ত হচ্ছে স্মার্টফোন

মেসেঞ্জারের মাধ্যমে ভাইরাস আক্রান্ত হচ্ছে স্মার্টফোন

অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন ব্যবহার করেন? তাহলে একটু সময় বের করে এ প্রতিবেদনটি পড়ে ফেলুন। কারণ বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, আপনার সাধের স্মার্টফোনটিতে হানা দিতে পারে একটি র্যানসামওয়্যার। যা এসএমএসের মাধ্যমে অন্যান্য মোবাইলেও সহজেই ছড়িয়ে যাচ্ছে। ফলে যে কোনো সময় হ্যাং হয়ে যেতে পারে আপনার হ্যান্ডসেটটি আর ফাঁস হতে পারে আপনার ফোনের গোপন তথ্য।

সাইবার সিকিউরিটি সংস্থা ইসেট এর গবেষকরা সম্প্রতি একটি ব্লগ প্রকাশ করেছেন। যেখানে এ নিয়ে বিস্তারিত কিছু তথ্য তুলে ধরেছেন তারা। জানিয়েছেন, গত ১২ জুলাই থেকে অ্যান্ড্রয়েড ফোনে হানা দিচ্ছে নতুন এক প্রকার ভাইরাস।

একটি মোবাইলে ভাইরাসটি ঢুকে গেলে তা সহজেই একটি কোডের মাধ্যমে অন্য সেটে ছড়িয়ে পড়ছে। আর হ্যাকাররা এর মাধ্যমে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর প্রয়োজনীয় তথ্য পেয়ে যাচ্ছে। রিড্ডিট অথবা এক্সডিএ ডেভেলপার ফোরামের মাধ্যমে এ র‌্যানসামওয়্যারটি ছড়াচ্ছে হ্যাকাররা।

বিষয়টি অবগত হতেই ভাইরাস-যুক্ত সেই কোডটি সরিয়ে দিয়েছে এক্সডিএ ডেভেলপার। তবে রিড্ডিট এখনো এমন কোনো পদক্ষেপ করেনি। ফলে এখনো ভাইরাসমুক্ত নয় অ্যান্ড্রয়েডের দুনিয়া। এবার জেনে নিন আর কীভাবে আপনার মোবাইলে ঢুকতে পারে ভাইরাসটি।

ধরুন কোনো ভাইরাস-যুক্ত ফাইল আপনি ভুলবশত ডাউনলোড করলেন। অ্যান্ড্রয়েডে র্যানসমওয়্যার বিভিন্ন লিংক এসএমএসের মাধ্যমে আপনার কনট্যাক্ট লিস্টের সব নম্বরে ছড়িয়ে দেবে। এসএমএসে সেই লিংকে গিয়ে কমেন্ট করতেও বলা হতে পারে আপনাকে।

সংস্থার অন্যতম গবেষক বলছেন, ‘সাধারণত পর্ন সংক্রান্ত লিংকই দেওয়া হয়। আবার অনেক সময় প্রযুক্তিগত আলোচনারও উল্লেখ থাকে সেখানে। যাতে ব্যবহারকারীরা বেশি আগ্রহী হন।’ দ্রুত প্রভাব বিস্তার করতে আপনার পছন্দের ভাষাও ব্যবহার করে থাকে হ্যাকাররা।

জানা গেছে, ৪২টি ভাষাতে এসএমএসের মাধ্যমে নতুন ভাইরাসটি ছড়াচ্ছে। এসএমএসের মাধ্যমে পাঠানো লিংক থেকে ভাইরাস-যুক্ত অ্যাপ ডাউনলোড করে ইনস্টল করলে র‌্যানসমওয়্যারে আক্রান্ত হবে আপনার স্মার্টফোনটিও। তাই কোনো মেসেজ খুলে দেখার আগে সাবধান।

আপনার মতামত লিখুনঃ