ভর্তি ফরমের মূল্য না কমালে লাগাতার আন্দোলনে নামবে রাবি শিক্ষার্থীরা

মাইনুল ইসলাম, রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে  স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় আবেদন ফরমের মূল্য কমানোর দাবিতে লাগাতার আন্দোলন করে যাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। সোমবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে ভর্তি ফরমের মূল্য কামানো সহ  চার দফা দাবি জানানো হয়।

এর আগে রোববার একই দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করছে শিক্ষার্থীরা। এসময় তারা ভর্তি ফরমের মূল্য কমানোর জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে ১২ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দেন।

ভর্তি ফরমের মূল্য কমানো ছাড়াও শিক্ষার্থীদের অন্য দাবিগুলো হলো, ভর্তির আবেদন ফি ৫০০ টাকায় সীমাবদ্ধ করা, একজন শিক্ষার্থীকে একাধিক ইউনিটে পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ সৃষ্টি, প্রতি ইউনিটে ৩২ হাজার করে নির্বাচন পদ্ধতি বাতিল করা ও নতুন ইউনিট করে শিক্ষার্থীদের বিভাগ পরিবর্তনের সুযোগ করে দেওয়া।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদনকারীরা অধিকাংশ নিম্ন-মধ্যবিত্ত ও মধ্যবিত্ত ঘরের। এক হাজার ৯৮০ টাকা দিয়ে একটা ফরম উঠানোর পর পরীক্ষা দিতে আসতে আরও কয়েক হাজার টাকা গুনতে হবে শিক্ষার্থীদের। মধ্যবিত্ত পরিবারের জন্য এটা খুবই কষ্টসাধ্য।

বিভাগ পরিবর্তনের সুযোগ রাখার দাবি জানিয়ে বক্তারা বলেন, ‘একজন শিক্ষার্থী শুধু এইচএসসিতে পাশ করে আসা বিভাগে পরীক্ষা দিতে পারবে। কিন্তু যারা বিগত সময়ের নিয়মে বিভাগ পরিবর্তন করে ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছে তাদের কি হবে? ভর্তি পরিক্ষার আর বাকি মাত্র দুইমাস। এ সময়ে হঠাৎ করে নিয়ম পরিবর্তন করা অযৌক্তিক।’ এ নিয়ম প্রত্যাহার করে নেয়ার দাবি জানান শিক্ষার্থীরা।

এদিকে, মানববন্ধন চলাকালীন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমান উপস্থিত হয়ে শিক্ষার্থীদের বলেন, গতবছর মোট পাঁচটি ইউনিট ছিল। সব ইউটিটে আবেদন করার জন্য খরচ হতো পাঁচ হাজার টাকারও বেশি। এবার মাত্র তিনটি ইউনিট করা হয়েছে। আর একজন শিক্ষার্থী মাত্র একটি ইউনিটে পরীক্ষা দিতে পারবে। তাই আবেদন ফি ধরা হয়েছে ১৯৮০ টাকা যা গত বছরের তুলনায় অনেক কম।

আন্দোলনকারীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘তোমাদের কোন যৌক্তিক দাবি থাকলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য বরাবর লিখিত আবেদন দাও।’

মানবন্ধন থেকে, শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো মেনে নেয়া না হলে আরও কঠোর আন্দোলনে যাওয়ার ঘোষণা দেয়া হয় মানববন্ধনে উপস্থিত সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

প্রসঙ্গ গত আগামী ২০ অক্টোবর থেকে ২২ অক্টোবর পর্যন্ত অনুষ্ঠিতব্য এ ভর্তি পরীক্ষায় প্রার্থীদের দ্বিতীয়বার অংশগ্রহণের সুযোগ থাকছে না। ভর্তির প্রাথমিক আবেদন প্রক্রিয়া আগামী ৩ সেপ্টেম্বর শুরু হয়ে চলবে ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। চূড়ান্ত আবেদন ১৭ সেপ্টেম্বর শুরু হয়ে ৩০ সেপ্টেম্বর শেষ হবে।

আপনার মতামত লিখুনঃ