ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির অভিযোগে ঢাবির ৬৯ শিক্ষার্থী বহিষ্কার

ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির অভিযোগে ঢাবির ৬৯ শিক্ষার্থী বহিষ্কার

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির অভিযোগে বিভিন্ন বিভাগের ৬৯ জন শিক্ষার্থীকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা পরিষদের সভায় এ সিদ্ধান্ত হয় বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

এই শিক্ষার্থীরা ২০১২-২০১৩ শিক্ষাবর্ষ থেকে ২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছিলেন। ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস ও জালিয়াতির মামলায় সিআইডির অভিযোগপত্রভুক্ত আসামি তারা। সাময়িক বহিষ্কার এই ৬৯ শিক্ষার্থীকে এখন কারণ দর্শাও নোটিস দেওয়া হবে; সেখানে সাত দিনের মধ্যে তাদের জবাব দিতে বলা হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক গোলাম রাব্বানী বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রচলিত আইন ও বিধি অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তাদের কেন স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না তা জানতে চাওয়া হবে কারণ দর্শাও নোটিসে।

এক প্রশ্নের জবাবে প্রক্টর বলেন, নোটিসের জবাব পাওয়ার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সভায় এই শিক্ষার্থীদের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। সেখানে যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হবে, তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে এবং তাদের তালিকা প্রকাশ করা হবে।

ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস ও জালিয়াতির সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে গত ২৩ জুন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৮৭ শিক্ষার্থীসহ মোট ১২৫ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ-সিআইডি।

আইসিটি আইন এবং পাবলিক পরীক্ষা আইনে দেওয়া দুটি অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে ঢাকার মহানগর হাকিম সরাফুজ্জামান আনসারী গত ২৬ জুন পলাতক ৭৮ আসামির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

আপনার মতামত লিখুনঃ