ববি খুলছে রোববার, উপাচার্যকে ছুটিতে যাওয়ার পরামর্শ

ববি খুলছে রোববার, উপাচার্যকে ছুটিতে যাওয়ার পরামর্শ
ববি খুলছে রোববার, উপাচার্যকে ছুটিতে যাওয়ার পরামর্শ

টানা ১২ দিনের অচলাবস্থার পর রোববার থেকে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। শনিবার সন্ধ্যার মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব আবাসিক হল এবং ডাইনিং খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। সন্ধ্যায় শহীদ আবদুর রব সেরনিয়াবাত বরিশাল প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা।

এর আগে দুপুরে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক শামীমের সভাপতিত্বে বরিশাল সার্কিট হাউজে সমঝোতা বৈঠক হয়। ওই বৈঠকে শিক্ষার্থীদের অনড় অবস্থানের কারণে উপাচার্য প্রফেসর ড. এস এম ইমামুল হককে ছুটিতে যাওয়ার পাশাপাশি তাকে আর বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্ব পালন করতে না দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অবহিত করার কথা জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী শামীম।

বেলা সাড়ে ১১টায় বরিশাল সার্কিট হাউজের সভাকক্ষে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সমঝোতা সভার কথা উল্লেখ করে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী মহিউদ্দিন আহমেদ শিফাত বলেন, শিক্ষার্থীদের ২৫ সদস্যের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে সদর আসনের এমপি ও পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক শামীম, বরিশাল সিটি মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ, বিভাগীয় কমিশনার, পুলিশ কমিশনার, জেলা প্রশাসকসহ প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২ সদস্যের শিক্ষক প্রতিনিধি এবং ৩ সদস্যের সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে দীর্ঘ চার ঘণ্টার রুদ্ধদ্বার বৈঠক শেষ হয় বিকেল ৪টায়।

সংবাদ সম্মেলনে আন্দোলনকারীদের অন্যতম নেতা মহিউদ্দিন আহমেদ শিফাত বলেন, তারা এতদিন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে অভিভাবকসূলভ আচরণ পাননি। সভায় তাদের সেই অভিভাবক শূন্যতা পূরণ হয়েছে। বৈঠকে শিক্ষার্থীরা উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিতে অনড় থাকে। এর প্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার স্বাভাবিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনাসহ তাকে (উপাচার্য) আর বরিশালে দায়িত্ব পালন না করতে দেয়ার বিষয়ে একমত হন বৈঠকে উপস্থিত সবাই।

এ ব্যাপারে সদর আসনের এমপি ও পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক শামীম সাংবাদিকদের বলেন, শিক্ষার্থীদের সব দাবির সঙ্গে একমত না হলেও কিছু দাবির সঙ্গে তারা একমত পোষণ করেছেন। শিক্ষার্থীদের দাবি অনুযায়ী এই উপাচার্যকে ছুটিতে পাঠানো কিংবা তাকে আর দায়িত্ব পালন করতে না দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে অবহিত করা হবে

একই সঙ্গে শনিবার বিকেলের মধ্যে সকল আবাসিক হল ও ডাইনিং খুলে দেওয়া ছাড়াও রোববার থেকে সব শিক্ষা কার্যক্রম শুরুর বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ ছাড়া আগামীতে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের যে কোনো সংকট মোকাবেলায় বরিশালের একজন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে সিন্ডিকেট কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য সভায় সবাই ঐক্যমত পোষণ করেন এবং এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে প্রস্তাবনা পাঠানোর কথা বলেন পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার ও শিক্ষক ড. হাসিনুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, মৌখিকভাবে শনিবার বিকেল থেকে সকল আবাসিক হল এবং ডাইনিং চালুর জন্য বলা হয়েছে। সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক রোববার থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষা এবং প্রশাসনিক কার্যক্রম শুরুর কথা বলেন রেজিস্ট্রার ড. হাসিনুর রহমান।

রাতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের অন্যতম নেতা অর্থনীতি বিভাগের স্নাতকোত্তর বর্ষের ছাত্র জহিরুল ইসলাম ও রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিভাগের ৪র্থ বর্ষের ছাত্র শফিকুল ইসলাম বলেন, সমঝোতা বৈঠকের পর শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা করে তারা সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন, উপাচার্যকে ছুটিতে পাঠানো কিংবা তার পদত্যাগের লিখিত প্রমাণ হাতে পাওয়া ছাড়া শিক্ষার্থীরা আন্দোলন প্রত্যাহার করবে না। এই দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তারা ক্যাম্পাসও খুলতে দেবেন না।

গত ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ না জানানোর প্রতিবাদ করলে উপাচার্য শিক্ষার্থীদের কটূক্তি করেন। এই কটূক্তি প্রত্যাহারসহ ১০ দফা দাবিতে ২৭ মার্চ থেকে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। আন্দোলন প্রশমিত করতে ২৮ মার্চ থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ করে ওই দিন বিকেলের মধ্যে আবাসিক শিক্ষার্থীদের হলত্যাগের নির্দেশ দেন উপাচার্য। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে ২৮ মার্চ থেকে ১০ দফা বাদ দিয়ে উপাচার্যের পদত্যাগের এক দফা দাবিতে আন্দোলন শুরু করে শিক্ষার্থীরা।

আপনার মতামত লিখুনঃ