‘বন্যা থেকে মুক্তি চাই,তিস্তা নদীর খনন চাই’ বাঁধ নির্মাণের দাবি রাবি শিক্ষার্থীদের

মাইনুল ইসলাম, রাবি প্রতিনিধি: উত্তরবঙ্গের তিস্তা নদীতে বাঁধ নির্মাণের দাবি জানিয়ে মানববন্ধন করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যায়ের (রাবি) শিক্ষার্থীরা। গত বৃহস্পতিবার(২৫ জুলাই) সকাল ১১টার দিকে কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত রংপুর বিভাগের শিক্ষার্থীরা এ মানববন্ধনের  আয়োজন করেন।

এসময় ‘বন্ধ হবে আর্তনাদ, যদি হয় তিস্তায় বাঁধ’, ‘তিস্তা নদীর খনন ও বাঁধ চাই’, ‘ত্রাণ নয়,বন্যা সমস্যার সমাধান চাই’, ‘তিস্তা নদীর স্থায়ী সমাধান চাই’, ‘বন্যা থেকে মুক্তি চাই,তিস্তা নদীর খনন চাই’ ইত্যাদি স্লোগান সম্বলিত প্ল্যাকার্ড নিয়ে এ দাবি তুলে ধরে শিক্ষার্থীরা।

মানববন্ধনে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী খাইরুল ইসলাম বলেন, রংপুর বিভাগে পাঁচজন পূর্ণ মন্ত্রী থাকা সত্ত্বেও নদীর কাজ এখন না হলে আর কবে হবে? মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তিস্তা নিয়ে ভাবেন। শুধুমাত্র ভারতের সাথে তিস্তা চুক্তির আশায় বসে না থেকে দেশের অভ্যন্তরে কোনো ব্যবস্থা নেয়া যায় কি না সে ব্যপারে একটু ভাবুন। দেশীয় অর্থায়নে যদি পদ্মা সেতুর মতো বৃহত্তর প্রকল্প হাতে নেয়া যায় তবে তিস্তা খনন এবং বাঁধ নির্মাণ কঠিন কিছু নয়। এ কাজে এগোতে কঠিন মনে হলেও অসম্ভব কিছু হবে না। দীর্ঘমেয়াদি পদক্ষেপ নিয়ে নদী খনন ও বাঁধ নির্মাণ করতে হবে। নদী ভাঙনে নির্দিষ্ট কিছু পাইলিং এর ব্যবস্থা, বন্যা হলেই ত্রাণ আর বন্যা শেষে ক্ষুদ্র পরিসরে সংস্কার কাজের মধ্যেই থেমে থাকলে চলবে না। আমরা দীর্ঘমেয়াদি কাজ চাই।

ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থী সোহরাব হোসেন বলেন, তিস্তা এখন উত্তরবঙ্গের দুঃখ হয়ে গেছে। একদিকে বন্যার কারণে যেমন – হাজার হাজার হেক্টর জমির ফসল নষ্ট হচ্ছে তেমনি খরা মৌসুমেও পানির অভাবের ক্ষতি হচ্ছে অনেক আবাদি ফসল। সভ্যতার শেকড় তিস্তা এখন আশীর্বাদের পরিবর্তে অভিশাপ হচ্ছে। বন্যা কবলিত মানুষের দুর্দশার কথা ভাবছেন, দয়া করে একটু ভালোভাবেই ভাবুন তিস্তা নদীর কাজ করুন।

এসময় শিক্ষার্থীরা আরো বলেন, প্রতিবছরেই বন্যা হয়। প্রতিবছরই আমাদের নেতারা ত্রাণ নিয়ে যায়। এটা স্থায়ী সমাধান না। ভারতের সাথে যৌথ ভাবে এর স্থায়ী সমাধান করতে হবে। নদী খনন ও বাঁধ নির্মাণ করতে হবে। তবেই আমাদের এই দুর্ভোগ কমবে।

মার্কেটিং বিভাগের শিক্ষার্থী মাহফুজ মুন্নার সঞ্চালনায়  আরো বক্তব্য দেন, নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী নয়ন মহন্ত, আইন বিভাগের শিক্ষার্থী সাদ্দাম হোসেন এবং পপুলেশন সায়েন্স এন্ড হিউম্যান রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট বিভাগের শিক্ষার্থী ইমরান সাকিব প্রমুখ।

মানববন্ধনে অন্যান্য বিভাগের শিক্ষার্থী সহ প্রায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেয়।

আপনার মতামত লিখুনঃ