বদরগঞ্জে আমনক্ষেতে পোকা সনাক্তকরণে একযোগে ৩১টি ব্লকে আলোক ফাঁদ স্থাপন

বদরগঞ্জে আমনক্ষেতে পোকা সনাক্তকরণে একযোগে ৩১টি ব্লকে আলোক ফাঁদ স্থাপন

বদরগঞ্জ(রংপুর)প্রতিনিধি॥
রংপুরের বদরগঞ্জে আমনক্ষেতে পোকা সনাক্তকরণের লক্ষ্যে একযোগে ৩১টি ব্লকে আলোক ফাঁদ স্থাপন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার(১৮সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় পৌরশহরের ফেসকিপাড়া এলাকায় ওই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা মো. জোবাইদুর রহমান। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপসহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা কনক চন্দ্র রায়, উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নুরেজা বেগম, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি ও ফেসকিপাড়ার আমন চাষিরা।

উপসহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা কনক চন্দ্র রায় বলেন, উপজেলায় ১৯হাজার ৫৪৫হেক্টর জমিতে আমন চাষ হয়েছে। বর্তমানে কিছু ক্ষেতের ধানগাছে ফুল এসেছে। আবার অনেক ক্ষেতেই থোড় এসেছে। ক্ষতিকর পোকা-মাকড় যাতে ধান ক্ষেতের ক্ষতি সাধন করতে নাপারে সেজন্যই এই আলোক ফাঁদ কার্যক্রম। এতে চাষিরা নিজেরাই ক্ষতিকর ও উপকারী পোকা সনাক্ত করতে সক্ষম হবেন। একদিন হয়তো দেখা যাবে কর্মকর্তাদের ছাড়াই চাষি নিজেই ক্ষতিকর পোকা সনাক্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন।

উপজেলা কৃষি অফিসার গোলাম মোস্তফা মো. জোবাইদুর রহমান বলেন, মূলতঃ ধানের সর্বনাশ ডেকে আনে ব্রাউন প্লান্ট হপার(বিপিএইচ) বা কারেন্ট পোকা। বর্তমান বিরাজমান আবহাওয়া কারেন্ট পোকা জন্মানোর অনুকুলে। এসময় কারেন্ট পোকার মথ ডিম ছাড়ে। আর ওই মথ আলোতে আকৃষ্ট হয়ে ছুটে আসে। একারণেই এই আলোক ফাঁদ কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত কারেন্ট পোকা বা ধানের ক্ষতিকর কোন পোকারই উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়নি। তারপরও এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে এবং তা’ পুরো অক্টোবর জুড়ে চলবে।

আপনার মতামত লিখুনঃ