বগুড়ায় বন্দুক যুদ্ধে শীর্ষ সন্ত্রাসী ছেলে নিহত

বগুড়ায় বন্দুক যুদ্ধে শীর্ষ সন্ত্রাসী ছেলে নিহত বগুড়ায় বন্দুক যুদ্ধে শীর্ষ সন্ত্রাসী ছেলে নিহত
বগুড়ায় বন্দুক যুদ্ধে শীর্ষ সন্ত্রাসী ছেলে নিহত

আরএইচ রফিক,বগুড়া ।।
বগুড়া শহরে কথিত বন্দুকযুদ্ধে রাফিদ আনাম ওরফে স্বর্গ (২৫) নামে এক সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে বারোপুর নামাজগড় সড়কের উপশহরের ধুন্দাল সেতু এলাকায় সশস্ত্র দুই গ্রুপ সন্ত্রাসীর মধ্যে গোলাগুলিতে তার মৃত্যু হয়েছে বলে পুলিশের একটি সূত্রে দাবী করা হয়েছে। এসময় উদ্ধার হয়েছে গুলি ভর্তি একটি বিদেশী পিস্তল, ম্যাগজিন ও বার্মিজ চাকু ।

নিহত স্বর্গ পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হওয়া বগুড়া শহরের ঠনঠনিয়া এলাকার লিয়াকত আলীর ছেলে।
এবিষয়ে বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বগুড়া সদর)সার্কেল সনাতন চক্রবর্তী বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ জানায়, রাত দেড়টার দিকে উপশহর ধুন্দাল সেতু এলাকায় ২দল সন্ত্রাসী গ্রুপের মধ্য গোলাগুলি শুরু হলে বিষয়টি পুলিশ জানতে পারে । পরে মধ্যে গোলাগুলির খবর পেয়ে টহল পুলিশের দল সেখানে যান।
পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা সেখান থেকে পালিয়ে যায় । পরে পুলিশ সেখানে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এক ব্যক্তিকে পড়ে থাকতে দেখে। এসময় এলাকায় তল্লাশীকালে পুলিশ ঘটনাস্থলে ১টি বিদেশি পিহমশল, একটি ম্যাগাজিন, একটি গুলি ও একটি বর্মি চাকু উদ্ধার করে। পরে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় নিহতকে পুলিশ বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

পরে পুলিশ নিশ্চিত হয় যে নিহত তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী রাফিদ আনাম স্বর্গ । তার বিরুদ্ধে হত্যা, অবৈধ অস্ত্র রাখা ও চাঁদাবাজির অভিযোগে মামলা রয়েছে।নিহত স্বর্গের পিতা রিয়াকত আলী ২০০৬সালে পুলিশের সাথে কথিত বন্দুক যুদ্ধে নিহত হন ।এর পর । ১৮বছর বয়স থেকে ক্রমেই স্বর্গ বিভিন্ন অপরাধ কর্মকান্ডে জরিয়ে পরে।
২০১১সালে শহরের জলেশ্বরীতলায় একটি কোচিং সেন্টারের মালিকানা নিয়ে কোচিং সেন্টারের মালিক মোস্তাফিজারের ভাগনে শরিফুল খুন হয় । ওই হত্যাকান্ডে র্স্বগ একজন ভাড়াটিয়া খুনি হিসাবে অংম গ্রহন করে বলে অভিযোগ রয়েছে।

২০১২ সালের ১২জুন এলাকায় একটি বিচিত্রা অনুষ্ঠানে তুচ্ছ ঘটনায় সরকারী শাহ সুলতান কলেজের ছাত্র নিরঞ্জন চক্রবর্তি ওরফে দীপুকে হত্যাকান্ডের শিকার হয়। ওই ঘটনায় স্বগের বিরুদ্ধেও মামলা হয়।
এদিকে অভিযোগে আরো জানা যায় , বিএনপি নেতা এ্যাডভোকেট মাহবুব আলম শাহীন হত্যাকান্ডে স্বর্গের সংশ্লিষ্টতা ছিল মর্মে ধারনা করা হচ্ছে । বিএনপির শীর্ষ নেতা শাহীন খুন হওয়ার মাত্র কয়েক মাস আগে স্বর্গ জামিনে কারাগার থেকে বেরিয়ে এসেছিল
নিহত রাফিদ আনাম স্বগ্র্রে মৃতদেহ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুনঃ