বউ পেটানোর মামলায় জামিন পেলেন হিরো আলম

বউ পেটানোর মামলায় জামিন পেলেন হিরো আলম
বউ পেটানোর মামলায় জামিন পেলেন হিরো আলম

বগুড়া প্রতিনিধি।।
বউ পেটানোর মামলায় অবশেষে দীর্ঘ প্রায় দেড় মাস পর স্ত্রীর করা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের মামলায় জামিন পেলেন আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম। বৃহস্পতিবার বগুড়ার জেলা ও দায়রা জজ নরেশ চন্দ্র সরকার তার জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন। তবে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত হিরো আলমকে কারাকর্তৃপক্ষ মুক্তি দেয়নি ।
বগুড়া কারা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, আদালতের আদেশ পত্র সহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র কারাগারে পৌঁছার সঙ্গে সঙ্গে তাকে মুক্তি দেওয়া হবে। এর আগে আদালতে প্রবেশের আগে হিরো আলম তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ মিথ্যা প্রমানিত হওয়ায় আপোষ মিশাংশায় তিনি আজ জামিন পাবেন বলে জানান।

বগুড়া সদরের বাংলাদেশে নবাগত সেলিব্রেটি আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলম বগুড়া সদরের এরুলিয়া গ্রামের মৃত আহম্মদের ছেলে । তিনি মূল পেশা হিসাবে তিনি ডিশ ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। সমপ্রতি সময়ে মিউজিক ভিডিও এবং জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ গ্রহন করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ব্যাপক আলোচনায় আসেন তিনি। তার ভিডিও শেয়ারিং সাইট ইউটিউবেও ব্যাপক ভাবে জনপ্রিয়তা পান তিনি। গত একাদশ জাতীয় সংসদে নির্বাচনে বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হন। নির্বাচনে তার প্রার্থীতা নিয়েও দেশজুড়ে ব্যাপক আলোচনা হয়। বগুড়া-৪ আসনে বিএনপির নির্বাচিত সাংসদ শপথ না নিলে তিনি আবারো উপ-নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করবেন গত কাল সাংবাদিকদের জানান ।

হিরো আলমের বিরুদ্ধে ৩সন্তানের জননী স্ত্রী সাবিয়া আক্তার সুমিকে মারপিট করার অভিযোগে গত ৬ মার্চ বিকেলে শ্বশুড় সাইফুল ইসলাম খোকন বগুড়া সদর থানায় মামলা দায়ের করেন। এরপর ওইদিন রাতে মিমাংশা বৈঠকের কথা বলে ডেকে এনে রাতে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরদিন তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

এদিকে আদালতের একটি সূত্র জানায়, হিরো আলম কারাগারে যাওয়ার কয়েকদিন পরই তার শ্বশুড় সাইফুল ইসলাম মামলা আপোষ মিমাংসায় সম্মত হন। এরপর গত ২৫ মার্চ জেলা ও দায়রা জজ আদালতে একটি আপোষনামাও দাখিল করেন। আদালতে হিরো আলমের স্ত্রী সাবিয়া আক্তার সুমি ও শ্বশুড় উপস্থিতে ওইদিন তার পক্ষে জামিন প্রার্থনা করা হয়। সেদিন শুনানীকালে মামলায় বর্ণিত অভিযোগের বিষয়ে কোন প্রমাণ দেখাতে না পারায় বিচারক নরেশ চন্দ্র সরকার হিরো আলমের স্ত্রী এবং তার শ্বশুড়কে ভৎর্সনা করেন। এরপর আদালত ১৮ এপ্রিল হিরো আলমের উপস্থিতিতে শুনানীর নির্দেশ দেন।
এদিকে যথারীতি ধর্য্য শুনানির দিন গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় হিরো আলমকে প্রিজন ভ্যানে করে কারাগার থেকে কোর্ট হাজতে আনা হয়। এরপর দুপুর দেড়টার দিকে তাকে আদালতে বিচারকের সামনে হাজির করা হয়। আদালতে হিরো আলমের পক্ষে অ্যাডভোকেট মাসুদুর রহমান স্বপন শুনানী করেন। তিনি জানান, শুনানী শেষে আদালত ১০হাজার টাকায় মুচলেকা মুলে হিরো আলমের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন।

এর আগে কোটের্ পেশাগত দায়িত্ব পালন কালে আদালতের হাজতে থাকা হিরো আলম সাংবাদিকদের জানান, আজ আমার জামিন হবে।’ জামিন পেলে কি করবেন সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে হিরো আলম জানান , আবার মিডিয়াতে কাজ শুরু করবেন তিনি এবং উপনির্বাচনে অংশ নেবেন ।