প্রেমিকার স্বজনের মারপিটে প্রেমিকের মৃত্যু

প্রেমিকার স্বজনের মারপিটে প্রেমিকের মৃত্যু

লালমনিরহাটে প্রেমিকার মুঠোফোনে বার্তা পেয়ে দেখা করতে গিয়ে বেধর মারপিটের শিকার আহত মাসুদ রানা সোহেল(২৯) রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছেন। এদিকে সোহেলের পিতা আইয়ুব আলী বাদি হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন বলে লালমনিরহাট সদর থানার (ওসি) মাহফুজ আলম বিষটি নিশ্চিত করেছেন।

আজ(১৮ আগস্ট) বিকেল ৩টায় লালমনিরহাট পৌরসভার টিএনটি ভবন এলাকার নিজ বাড়ি থেকে মরদেহ উদ্ধার করে সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায় পুলিশ। মৃত মাসুদ রানা সোহেল লালমনিরহাট পৌরসভার টিএনটি ভবন এলাকার আইয়ুব আলীর ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘ দিন থেকে সোহেলের সাথে প্রেমের সম্পর্ক জড়িয়ে পড়ে লালমনিরহাট শহরের নর্থ বেঙ্গল মোড় এলাকার আতিয়ার রহমানের মেয়ে আশামনির(১৬)। কিন্তু মেয়ে ও ছেলের বয়স কম বেশি হওয়াতে মেয়ের পরিবার তা মেনে না নিয়ে ছেলেকে ডেকে আনতে বলে মেয়েকে।

পরে মুঠোফোনে ক্ষুদে বার্তা পেয়ে গত বৃহস্পতিবার(১৫ আগস্ট) বিকেলে প্রেমিকার ডাকে তার সাথে দেখা করতে যান সোহেল। ওই সময় মেয়েটির পরিবারের লোকজনসহ সোহেলকে আটক করে রাভভর বেধম মারপিট করে ছেড়ে দেয়।

এদিকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে সোহেলের বাড়িতে নিয়ে যায়। গত শনিবার(১৭ আগস্ট) রাতে হঠাৎ বেশি অসুস্থ হলে তাকে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে নিলে চিকিৎসকরা উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করেন। সেখানে চিকিৎসাধিন অবস্থায় রোববার(১৮ আগস্ট) সকালে মারা গেলে সোহেলের মরদেহ বাড়িতে নেন স্বজনরা। বিষয়টি জানাজানি হলে সোহেলের পরিবার লালমনিরহাট সদর থানায় মামলা দায়ের করেন। পরে বিকেল ৩টায় নিজ বাড়ি থেকে সোহেলের মরদেহ উদ্ধার করে লালমনিরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায় পুলিশ।

মৃত সোহেলের বাবা আইয়ুব আলী বলেন, বেধম মারপিটের কারনে সোহেল অসুস্থ হয়ে বুকে প্রচন্ড আঘাত পান এবং শনিবার রাতে নাকে মুখে রক্ত আসায় হাসপাতালে নিলে সেখানে তার মৃত্য হয়। তাকে হত্যা করা হয়েছে। বিচার দাবিতে থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়া হবে।

লালমনিরহাট সদর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মাহফুজ আলম বলেন, মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে রিপোর্ট এলে মৃত্যুর কারন জানা যাবে। সোহেলে পিতা আইয়ুব আলী বাদি হয়ে একটি হত্যা মামলা করেছেন।

আপনার মতামত লিখুনঃ