পেশাগত স্বাস্থ্য ও সেফটি দিবস আজ

পেশাগত স্বাস্থ্য ও সেফটি দিবস আজ
পেশাগত স্বাস্থ্য ও সেফটি দিবস আজ

জাতীয় পেশাগত স্বাস্থ্য ও সেইফটি দিবস আজ রোববার। ‘নিরাপদ কর্মপরিবেশ, টেকসই উন্নয়নের পথে বাংলাদেশ’এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি পালন করা হবে। এ নিয়ে চতুর্থবারের মতো জাতীয়ভাবে দিবসটি পালিত হবে। দিবসটি উপলক্ষে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান আলোচনা সভা, র‌্যালি, ট্রাক-শো, সভা-সমাবেশসহ ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।

দিবসটি উপলক্ষে রোববার বিকেল ৪টায় রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় আয়োজিত এক আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুনশি। এদিকে গতকাল শনিবার সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান জানান, বাংলাদেশ আইএলও এর সিগনেটরি দেশ হিসেবে কলকারখানায় উৎপাদন বৃদ্ধি, শ্রমিকদের নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্যের মতো বিষয়ের গুরুত্ব উপলব্ধি করে শ্রমিক-মালিকদের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের সময়ে ২০১৬ সাল থেকে জাতীয়ভাবে পেশাগত স্বাস্থ্য ও সেইফটি (ওএসএইচ) দিবস উদযাপন করা হচ্ছে।

যে কোন শ্রমিকের স্বাস্থ্যসুরক্ষা এবং নিরাপদ কর্মপরিবেশ নিশ্চিত করতে যা কিছু প্রয়োজন সব কিছু করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, স্বাস্থ্যসম্মত নিরাপদ কর্মপরিবেশ শ্রমিকের অধিকার। নিরাপদ কর্মপরিবেশে শ্রমিকদের স্বাস্থ্য যদি ভাল থাকে তাহলে উৎপাদন বৃদ্ধি পায়। শ্রমিকের জীবন ঝুঁকিতে রেখে কোনভাবেই শিল্প উন্নয়ন সম্ভব নয়। শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বলেন, সরকার ইতোধ্যে রাষায়নিক সুরক্ষা, মেশিনারি সেইফটি, নির্মাণ সেইফ পরিদর্শন এবং আর্গোনমিক্স সম্পর্কিত গাইড প্রণয়ন করা হয়েছে।

শ্রমিকের পেশাগত স্বাস্থ্য ও সেইফটি নিশ্চিতের জন্য রাজশাহীতে মন্ত্রণালয়ের নিজস্ব ১৯ বিঘা জমির ওপর ১৬৫ কোটি টাকা ব্যায়ে জাতীয় পেশাগত স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা বিষয়ক গবেষণা এবং প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের নির্মান শুরু করা হয়েছে। তিনি বলেন, ২০৪১ সালের উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ এবং ২০৩০ সালের এসডিজি লক্ষ্যমাত্রাকে সামনে রেখে পেশাগত এবং নিরাপত্তার গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হিসেবে সামনে এসেছে। ২২৬২ গার্মেন্টস কারখানায় সেইফটি গঠন করা হয়েছে।