পীরগঞ্জে কমেছে পাটের আবাদ : দাম নেই বাজারে

পীরগঞ্জে কমেছে পাটের আবাদ : দাম নেই বাজারে

এ এইচ লিটন পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি : ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে পাটের আবাদ কমে গেছে। বাজারে দাম কম, ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত পাট চাষীরা। পাট চাষাবাদে কৃষকদের সহায়তার জন্য এ উপজেলায় সরকারি পাট দপ্তর না থাকায় পাট চাষাবাদের লক্ষ্যমাত্রা কমেছে।

সাধারণ কৃষক নিজ মতে পাট চাষাবাদ করছেন। বাজারে সরকারি নির্ধারিত মূল্যেও পাট বিক্রয় হওয়ার কথা থাকলেও ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেটে তা কব্জা হয়ে রয়েছে। ফলে দিন দিন পাট চাষীদের আগ্রহ কমছে। এদিকে ভরা বর্ষা মৌসুমে পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত না হওয়ায় পাট চাষীরা তাদের পাট জাগ দিতে সুবিধামত না পারায় পাটের রঙ ভিন্ন আকার এসেছে।

তবে ভালো পাটের রঙ ভালো দাম, ভিন্ন রঙের পাটের দাম কম। কৃষকরা জানায় সোনালী আশ পাট কৃষকের লাভবান ফসল হলেও তা এখন নিরাশ করছে তাদের মাঝে। কিছু কৃষক দেরিতে পাট কেটে জাগ দেওয়ায় পর্যাপ্ত পানি না থাকার অভাবে পাট তুলতে পারেনি ঘরে। বাজার ঘুরে দেখা গেছে দেশী জাতের তোষা পাটের দাম প্রতি মন ১ হাজার ৪শ থেকে ১ হাজার ৫শ টাকায় বিক্রয় হচ্ছে।

পাটের দাম না উঠায় দায়ী করছেন ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটদের। উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানায় প্রায় ২০ হাজার হেক্টর জমিতে পাট চাষাবাদের লক্ষ্যমাত্রা ছিল। তবে সময় মত বৃষ্টি আর পাট চাষাবাদে এবং পাট জাগ দিতে না পারায় কৃষকরা কিছুটা ক্ষতিগ্রস্থ।

তাছাড়া উপজেলা পাট অধিদপ্তর কর্তৃক পাট চাষাবাদে চাষীদের সহায়তা করলে, চাষীরা পরিপূর্ণভাবে ফিরিয়ে আসবে পাট চাষে। এদিকে উপজেলার পাট দপ্তর এখন পাট দপ্তর বিহীন থাকায় চাষীদের সরকারি সহায়তা করার যেন নেই, ফলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন পাট চাষীরা।

আপনার মতামত লিখুনঃ