পাওনা টাকা চাওয়ায় বসতবাড়ীতে হামলা,ভাংচুরসহ নারীর শ্লীলতাহানি

পাওনা টাকা চাওয়ায় বসতবাড়ীতে হামলা,ভাংচুরসহ নারীর শ্লীলতাহানি

গোবিন্দগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি
গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে পাওনা টাকা ফেরত চাওয়ায় বসতবাড়ীতে হামলা, ভাংচুরসহ রুনা আক্তার (২২) নামের এক নারীর শ্লীলতাহানি ঘটানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার তালুককানুপুর ইউনিয়নের সমসপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, উপজেলার তালুককানুপুর ইউনিয়নের সমসপাড়া গ্রামের মোঃ জাহিদ আত্মীয়তার সুবাদে একই গ্রামের মৃত কাবাশিয়ার ছেলে আজাদুল ইসলাম ও মৃত মোজাহারের ছেলে মোঃ লৎফর রহমানকে ১০ হাজার টাকা ধার দেন। জাহিদের সংসারে অস্বচ্ছলতা দেখা দিলে গাজীপুর একটি ট্রেক্সটাইল মিলে চাকরী নেন।

এদিকে, আজাদুল ও লুৎফরের কাছে পাওনা টাকার জন্য বিভিন্ন সময় চাপ দেন জাহিদের স্ত্রী রুনা আক্তার। তারা টাকা না দিয়ে টালবাহানা শুরু করে। এরপর রুনা আক্তারের সাথে উভয়ের মাঝে কথা কাটাকাটি হয়। কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে পরিকল্পিতভাবে আজাদুল, লুৎফর ও রমজান আলী দলবদ্ধভাবে জাহিদের বসতবাড়ীতে হামলা চালায়। হামলা চালিয়ে ষ্টীলের দরজা ভাংচুর করে এবং রুনা আক্তারকে লাঠিদ্বারা মারপিট করে গুরুতর আহতসহ বিবস্ত্র করে শ্লীলতাহানি ঘটায়।

চিৎকারে তার শ্বাশুরী এগিয়ে এসে সেখান থেকে উদ্ধার করে ঘরে রেখে দরজা বন্ধ করে রাখে। স্থানীয়রা থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছার পূর্বে প্রাণনাশের হুমকী দিয়ে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রুনা আক্তারকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে দেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছিল।

গোবিন্দগঞ্জ থানার ওসি একেএম মেহেদী হাসান ঘটনা নিশ্চিত করে জানান, রুনা আক্তারকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অভিযোগ পেলে ঘটনাটি তদন্তপূর্বক পরবর্তী আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

আপনার মতামত লিখুনঃ