পঞ্চগড়ে প্রতিবেশীর ফাঁদে অবরুদ্ধ একটি অসহায় পরিবার

রাস্তা না থাকায় অন্যের হলুদ ক্ষেতের ভেতর দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে পরিবারটিকে
রাস্তা না থাকায় অন্যের হলুদ ক্ষেতের ভেতর দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে পরিবারটিকে

পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জে প্রতিবেশীর ফাঁদে পড়ে জমি ক্রয় করে অবরুদ্ধ হয়ে জীবনযাপন করছে একটি অসহায় গরীব পরিবার।

বাড়ি থেকে বের হওয়ার মতো রাস্তা না পেয়ে অন্যের মালিকানাধীন হলুদ ক্ষেত দিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে তাদের।

ঘটনাটি ঘটেছে জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলাধীন পৌর এলাকার বোডিং পাড়া এলাকায়। বৃদ্ধ আ. গফুর (৭০) ও তার স্ত্রী, সন্তান, নাতি ও নাতনি নিয়ে সপরিবারে এই বন্দী জীবনযাপন করে আসছেন। বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) বিকালে সরেজমিনে দেখা যায়, রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ার ফলে অসহায় পরিবারের সদস্যরা অন্যের একটি হলুদ ক্ষেত দিয়ে চলাচল করছেন।

জানা যায়, ৯ বছর পূর্বে বৃদ্ধ আ. গফুর ওই এলাকার বাসিন্দা আয়নাল হক নামের এক ব্যক্তির কাছে পথচলার রাস্তাসহ বসবাস করার নিমিত্তে ৫ শতক জমি ক্রয় করেন। কিন্তু প্রায় ২ বছর ধরে আয়নাল হক গফুরের বাড়ির চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দেয় এবং অবৈধভাবে আয়নাল ও তার স্বজনরা রাস্তা দখল করে একটি ঘর তোলেন। ফলে রাস্তা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আ. গফুরসহ তার পরিবারটি অবরুদ্ধ অবস্থায় জীবনযাপন করছেন।

অন্যদিকে, আয়নালসহ তার স্বজনদের দাপটে কাউকে কিছু বলতে পারছে না অসহায় এই পরিবারটি। অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে রেহাই পেতে ও ন্যায্য বিচারের আশায় ক্ষমতাশীল মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরে বিচার না পেয়ে স্থানীয় প্রশাসন থেকে শুরু করে জেলা প্রশাসন পর্যন্ত অভিযোগ করেছে এ পরিবারটি।

শত বাধা উপেক্ষা করে কখনো অন্ধকার রাতে কখনো বা হাঁটু জলে পানির মধ্যে দিয়ে অন্যের আবাদি জমির ওপর দিয়ে কষ্টে চলাচল করছে পরিবারটি। ন্যায় বিচারের আশায় মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছে পরিবারটি। স্থানীয় প্রশাসন থেকে শুরু করে জেলা প্রশাসন পর্যন্ত অভিযোগ করেছেন তারা।

রাস্তা বন্ধের বিষয়ে আব্দুল গফুর উত্তরবাংলাকে বলেন, ‘আয়নাল বাড়ির রাস্তাসহ আমার কাছে জমি বিক্রি করেছে। এখন সে রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে। আমি মরলে দাফনের জন্য আমার মরদেহটাও বের করার রাস্তা নেই, আমি বিচার চাই, আমি রাস্তা চাই, আর কত কষ্ট করে অন্য জমির ওপর দিয়ে চলবো।’

এ বিষয়ে আয়নাল হকের সঙ্গে একাধিকবার ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে দেবীগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী অফিসার ও পৌর প্রশাসক প্রত্যয় হাসান যুগের আলোকে, জানান আমি ঘটনাটি শুনে সরেজমিনে দেখে এসেছি এবং সহকারী কমিশনারকে (ভূমি) সুষ্ঠুভাবে তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুনঃ