পঞ্চগড়ের শান্তি পায়ে হেটে সাদুল্লাপুরের ধাপেরহাটে।

পঞ্চগড়ের শান্তি পায়ে হেটে সাদুল্লাপুরের ধাপেরহাটে।

সাদুল্লাপুর গাইবান্ধা থেকে আমিনুল ইসলাম:
পায়ে হেটেই তেতুলিয়া থেকে টেকনাফ যাবে শান্তি। উদ্দেশ্য প্রশ্নপত্র ফাঁস,ছেলে ধরা গুজব প্রকাশ্যে মানুষ হত্যার বিরুদ্ধে জনসচেনতা তৈরি।

গত ২১ জুলাই রোববার পঞ্চগড় জেলার তেঁতুলিয়া উপজেলা সদরের চৌরাস্তা মোড় থেকে এ পদযাত্রা শুরু করেন দিনাজপুর হাজী দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের শেষ বর্ষের ছাত্র সাইফুল ইসলাম শান্তি।

দির্ঘ ২৬০ কি:মি: পথ অতিক্রম করে বুধবার দুপুরে সাইফুল ইসলাম শান্তি গাইবান্ধা জেলার সাদুল্লাপুর উপজেলার ধাপেরহাট মহাসড়কের বাসষ্ট্যান্ড চত্তরে হ্যান্ড মাইক হাতে নিয়ে ফেসটুন ব্যানার ঝুলিয়ে প্রশ্নপত্র ফাঁস, ছেলে ধরা গুজব প্রকাশ্যে রিফাত,শরীফ হত্যাসহ অন্যায় ও দূর্নিতীর বিরুদ্ধে জনসচেনতা তৈরি করতে বক্তব্য রাখেন শান্তি।

তিনি জানান,এর আগেও দিনাজপুর হাজী দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অচলাবস্থা নিরসনের জন্য দিনাজপুর ও ঢাকায় মানববন্ধন করেছিলেন ছাইফুল ইসলাম শান্তি। সময় পেলে তিনি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে দূর্নীতি বিরোধী কর্মসূচি পালনও করেছেন।

পদযাত্রার শুরুতেই ছেলে ধরা গুজবের প্রচারনা চালাতে গিয়ে পঞ্চগড়ের জগদল বাজারে একদল গুজবকারীর রোষানলে পরে সামান্য আহত হয়েছে সে। বিষয়টি কয়েকটি প্রথম সারির জাতীয় দৈনিক পত্রিকাসহ একাধিক পত্রিকায় প্রকাশ হয়েছে। তিনি আরও জানান, পায়ে হেটে তেতুলিয়া থেকে টেকনাফ পৌছিতে তার ৪০/৪২ দিন সময় লাগবে। আসন্ন কোরবানীর ঈদ হবে তার রাস্তায়।

তার বক্তব্য শুনে উৎসুক জনতা বিভিন্ন প্রশ্ন করলেও সে বিরক্ত না হয়ে ধৈয্য সহকারে তার উত্তর দিয়ে যান। শান্তির বাড়ী পঞ্চগড় সদর উপজেলার আমলাহার গ্রামে। সে আব্দুল মজিদের প্রথম পুত্র। তার আরও ২ ভাইবোন রয়েছে।

আপনার মতামত লিখুনঃ