দুই সপ্তাহের বিশ্রামে মুস্তাফিজ

দুই সপ্তাহের বিশ্রামে মুস্তাফিজ
দুই সপ্তাহের বিশ্রামে মুস্তাফিজ

যতটা শঙ্কা জেগেছিল ততটা গুরুতর নয় মুস্তাফিজুর রহমানের চোট। তবে বিসিবির প্রধান ক্রীড়া চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী জানিয়েছেন, গোড়ালির গাঁটে হালকা চোটের জন্য আপাতত দুই সপ্তাহের জন্য মাঠের বাইরে থাকতে হবে বাঁহাতি এই পেসারকে।

১৫ মার্চ নিউ জিল্যান্ড থেকে দেশে ফেরার পর গত সোমবারই প্রথম মাঠে নামেন মুস্তাফিজ। শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাবের হয়ে বৃষ্টিবিঘিœত সেই ম্যাচে তরুণ এই পেসার নেন ৩ উইকেট। গত বুধবার অনুশীলন করার সময় বাঁ পায়ে চোট পান তিনি। বৃহস্পতিবার দেবাশীষ জানান, অন্তত দুই সপ্তাহ বিশ্রামে থাকতে হবে মুস্তাফিজকে।

“মুস্তাফিজ গতকাল অনুশীলনের সময় বাঁ পায়ের গোড়ালিতে আঘাত পায়। এরপর আমরা ওকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিই। আজকে ওর একটা এক্স-রে করা হয়। এক্স-রেতে তেমন খারাপ কিছু ধরা পড়েনি। আজকে আমরা একটা রিভিউ করেছি। পরবর্তী দুই সপ্তাহে ও ‘পার্শিয়াল ওয়েট-বিয়ারিং রেস্ট’ নেবে। দুই সপ্তাহ পর আমরা ওকে আবার রিভিউ করবো।”

“এক্স-রেতে হাড়ে কোনো চোটের অস্তিত্ব ধরা পড়েনি। চিড়জনিত কোনো সমস্যা নেই। লিগামেন্টে হালকা চোট আছে, যাকে বলে ‘ল্যাটারেল অ্যাংকল স্প্রেইন’। এই ধরনের চোট ওর আগেও ছিল। এগুলোর ব্যাপারে ভবিষ্যদ্বাণী করা খুব কঠিন। তবে সাধারণত সপ্তাহ দুয়েক পরে ব্যথার তীব্রতা কমে আসে। তাই আমরা আশা করছি, দুই সপ্তাহ পর ও স্কিল ট্রেনিং শুরু করতে পারবে।”

আগামী ২২ এপ্রিল থেকে বিশ্বকাপ দলের প্রস্তুতি শুরু হবে। শুরুর দিকে হয়তো স্কিল অনুশীলন করতে পারবেন না মুস্তাফিজ। ধীরে ধীরে স্কিল অনুশীলন শুরু করবেন তিনি। বিসিবির প্রধান চিকিৎসকের আশা শুরুর দিন থেকে পুরোদমে অনুশীলন করতে পারবেন পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায় থাকা মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ।
“মুশফিকের কিছুটা রিব ট্রমার ব্যথা ছিল। যদিও খেলাধূলার সঙ্গে এটার তেমন সম্পর্ক নেই, খেলতে কোনো সমস্যা হচ্ছে না। তবে ও যেহেতু পাঁজরে কিছুটা ব্যথার কথা বলেছিল, তাই আমরা ওকে এমআরআই স্ক্যান করাই। স্ক্যানে ওর হাড়ে কোনো সমস্যা ধরা পড়েনি। রিপোর্টটা নর্মাল এসেছে। আশা করছি ওর খেলতে কোনো সমস্যা হবে না।”

হ্যামস্ট্রিংয়ের চোট থেকে সেরে ওঠার পথে আছেন রুবেল হোসেন। পেস বোলিং অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন টেনিস এলবোর চোটে ভুগছেন। তবে তাদের নিয়ে কোনো শঙ্কা দেখেন না দেবাশীষ।
“রুবেলের পুনর্বাসন এই সপ্তাহে শেষ হতে যাচ্ছে। শনিবার থেকে ওর বোলিং অনুশীলন শুরু হবে। আশা করছি ও পর্যাপ্ত বিশ্রাম পেয়েছে।

“সাইফ এখন খেলার মধ্যেই আছে। ফিটনেসজনিত কারণে কিন্তু ও খেলা থেকে দূরে নেই। ও সব খেলাই খেলছে এবং যথেষ্ঠ ভালো পারফর্ম করছে। ওর ব্যাপারে আমরা যথেষ্ঠ খুশি। এই মুহূর্তে আমরা ইনজেকশনের চিন্তা করছি না। কারণ ইনজেকশন দিলে একটা লম্বা সময় বিশ্রামের ব্যাপার থাকে।”

আপনার মতামত লিখুনঃ