ড্রোন দিয়ে মার্কিন যুদ্ধজাহাজে ইরানের নজরদারি

ড্রোন দিয়ে মার্কিন যুদ্ধজাহাজে ইরানের নজরদারি
ড্রোন দিয়ে মার্কিন যুদ্ধজাহাজে ইরানের নজরদারি

যুক্তরাষ্ট্রের বিমানবাহী যুদ্ধজাহাজের ওপর ড্রোন ব্যবহার করে সফলভাবে নজরদারি চালিয়েছে ইরানের বিপ্লবী গার্ড। শনিবার দেশটির আধাসরকারি বার্তা সংস্থা তাসনিম নিউজে এ খবরের পাশাপাশি একটি ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করা হয়েছে। ভিডিওতে উপসাগরীয় এলাকায় অবস্থানরত মার্কিন যুদ্ধজাহাজ ডোয়াইট এইসেনহাওয়ার ও অপর একটি যুদ্ধজাহাজের ওপর দিয়ে ড্রোন উড়ে যেতে দেখা গেছে। এ ছাড়া প্রকাশিত ছবিতে যুদ্ধজাহাজে বিমান পার্ক করে রাখাও দেখা গেছে। তবে কখন এই ফুটেজ ধারণ করা হয়েছে তা জানায়নি বার্তা সংস্থাটি।নজরদারির ছবিটি প্রকাশ করেছে ইরানের বার্তা সংস্থা তাসনিম নিউজ

চলতি মাসের শুরুতে যুক্তরাষ্ট্র ইরানের বিপ্লবী গার্ডকে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী হিসেবে তালিকাভুক্ত করার পর এই পদক্ষেপ নিল তেহরান। ওই ঘটনার পরই প্রতিশোধের ঘোষণা দেয় তেহরান। যুক্তরাষ্ট্রকে সন্ত্রাসের মদদদাতা ঘোষণা করে এই অঞ্চলে মার্কিন বাহিনীর উপস্থিতিকে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী বলে বর্ণণা করে রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থায় খবর প্রকাশ হয়।

শনিবার তাসনিম নিউজের খবরে বলা হয়েছে, আবাবিল-৩ ড্রোন দিয়ে মার্কিন যুদ্ধজাহাজের ফুটেজ ধারণ করা হয়েছে। তিন হাজার ৬৫৮ মিটার উচ্চতায় একটানা আট ঘণ্টা উড়তে সক্ষম ড্রোনটি ২৫০ কিলোমিটার দূর থেকেও নিয়ন্ত্রণ করা যায় বলে জানানো হয় ওই খবরে।

মার্কিন নৌবাহিনীর সেন্ট্রাল কমান্ডের মুখপাত্র লেফটেন্যন্ট চোলে জে মরগ্যান বার্তা সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসকে বলেছেন, ২০১৬ সালের পর থেকে উপসাগরীয় এলাকায় অবস্থান করছে না ডোয়াইট এইসেনহাওয়ার যুদ্ধজাহাজ। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র এবং তাদের মিত্ররা হরমুজ প্রণালীতে চলাচলের স্বাধীনতা রক্ষায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। সমুদ্রপথে পরিবহন হওয়া বিশ্বের জ¦ালানী তেলের এক তৃতীয়াংশই হরমুজ প্রণালী দিয়ে পরিবাহিত হয়।

গত কয়েক বছর ধরে মার্কিন নৌবাহিনী অভিযোগ করে আসছে এই পথে চলাচলে ইরানের পাহারাদার নৌযানগুলোর বাধার মুখে পড়ছে তারা।