খোকা ও টুনটুনি

ছোট্ট টুনটুনির বুক-পেটের পালক সাদাটে,
ডানা-মাথা জলপাই-লালচে, নয় কাদাটে ।
চোখের মণি পাকা মরিচের মতো লালচে,
লেজ তার খাড়া এবং দেখতে নয় কালচে ।
টুনটুনি খায় ছোট কেঁচো- নয় মিছা! খোকা
আরো জানে, খায় আমপাতার বিছা পোকা ।
চালাক হলেও টুনটুনি বোকা- জানে সকলে,
চেঁচামেচি করে- কভু পড়ে সে শত্রুর কবলে ।
বাড়ির পিছনে শটিগাছে বেঁধেছে ছোট্ট বাসা,
শটিপাতার ভাঁজে টুনটুনির হাসিকান্না, আশা ।
খোকা পড়ালেখার ফাঁকে দেখে জানালা থেকে,
টুনটুনি টিটিপ টিটিপ টিটিপ করে যায় ডেকে ।
খোকা বৃহস্পতিবার দুপুরে স্কুল থেকে ফিরে
এসে যখনি তাকায় টুনটুনির ছোট্ট সেই নীড়ে-
দেখে দেখা যায় না ঠিক আগের মতো করে,
সত্যি বলতে খোকা তখন ভীষণ চিন্তায় পড়ে ।
খোকা দ্রুত যায় টুনটুনির ছোট্ট নীড়ের কাছে,
দেখলো শটিগাছটি মাটিতে নুয়ে পড়ে আছে ।
খোকা বুঝতে পারে হালকা বাতাস হয়েছিল,
নীড়ে ছোট্ট দুটি ছানা ছিল- খুব কষ্ট সয়েছিল ।
টুনটুনি ছানার প্রতি খোকার মায়ামমতা বাড়ে,
শটিগাছটি একটা কঞ্চিতে বেঁধে মাটিতে গাড়ে ।
চলছে টুনটুনির ঘরকন্না! বড়ধর্ম জীবের সেবা-
খোকার মতো করে সত্যিই আমরা বুঝি কেবা!
_____________________________
মোজাম্মেল সুমন
শিক্ষার্থী, পরিসংখ্যান বিভাগ ।
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া ।