কষ্টার্জিত জয়ে তালিকার শীর্ষে ফিরেছে লিভারপুল

কষ্টার্জিত জয়ে তালিকার শীর্ষে ফিরেছে লিভারপুল
কষ্টার্জিত জয়ে তালিকার শীর্ষে ফিরেছে লিভারপুল

মাথায় চোট নিয়ে তারকা স্ট্রাইকার মোহাম্মদ সালাহ মাঠ ছাড়ার পর শেষ মুহূর্তে ডিভোক অরিজির গোলে নিউক্যাসলকে ৩-২ ব্যবধানে হারিয়ে ফের পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে উঠেছে লিভারপুল। গতকাল শনিবার অনুষ্ঠিত প্রিমিয়ার ফুটবল লীগের আরেক ম্যাচে বোর্নমাউথের কাছে আরো একবার পরাজয়ের লজ্জায় ডুবল টটেনহ্যাম হটস্পার্স।

এদিকে ক্রিস্ট্যাল প্যালেসের কাছে ৩-২ গোলে হেরে প্রিমিয়ার লীগ থেকে অবনমন নিশ্চিত করল কার্ডিফ সিটি।
গতকাল শনিবার রোমঞ্চকর এই জয়ে ম্যানচেস্টার সিটিকে লীগের শেষ ম্যাচ পর্যন্ত শিরোপা জয়ের লড়াইয়ে টেনে নিয়ে গেল জার্গেন ক্লপের শিষ্যরা। লীগের শেষ ম্যাচে আজ সোমবার লিস্টার সিটিকে আতিথেয়তা দিবে ম্যানচেস্টার সিটি।

তবে ওই ম্যাচের আগে পর্যন্ত ২৯ বছরের শিরোপা স্বপ্ন হাতছাড়া করতে হলনা ক্লপ বাহিনীকে। তিনি বলেন, ‘আমাদের ভাগ্যে যদি চ্যাম্পিয়ন লেখা থাকে, তাহলে হব। কিন্তু সেরাটা খেলার পর এ বিষয়ে বাড়তি চাপ নেয়ার কোন প্রয়োজন নেই।

৯৪ পয়েন্ট অর্জন করাটা বিশাল ব্যাপার। আজ আমাদের জোড়ালো লড়াই করতে হয়েছে। আমাদেরকে দৃঢ় মনোবল নিয়ে লড়াই করতে হয়েছে। এর সুফল হিসেবে আমরা জয় পেয়েছি। এটি অসাধারণ একটি জয়।’

সেন্ট হেজমস পার্কে অনুষ্ঠিত ম্যাচের ১৩ মিনিটে গোল করে সফরকারী লিভারপুলকে লীড এনে দেন ভিরজিল ফন ডিক (১-০)। কিন্তু ৭ মিনিট পর ক্রিস্টিয়ান আটসুর গোলে নিউক্যাসল সমতায় আসার পরও মনোবল অটুট রেখেছে রেডরা (১-১)।

এরপর লিভাপুলের রাইট ব্যাক ট্রেন্ট আলেক্সান্দার-আর্নল্ডের একটি জোড়ালো প্রচেষ্টা গোল লাইন থেকে ফিরিয়ে দেন সালমন রনডন। কিছুক্ষণ পর ২৮ মিনিটে যে গোলটি করে মোহাম্মদ সালাহ লিভারপুলকে ফের এগিয়ে দিয়েছিলেন সেই বলের যোগানদাতা ছিলেন আর্নল্ড (২-১)।

তবে বিরতির পর ৫৪ মিনিটে রনডনের গোলে ফের সমতায় ফিরে আসে স্বাগতিক নিউক্যাসল (২-২)। এরপর নিউক্যাসলের গোল রক্ষক মার্টিন ডুব্রাকার সঙ্গে বল দখলের লড়াইয়ে নেমে মাথায় আঘাত পেলে স্ট্রেচারে করে মাঠের বাইরে নেয়া হয় এই মিশরীয় সুপার স্টারকে। যে আঘাতের কারণে বার্সেলোনার বিপক্ষে চ্যাম্পিয়ন্স লীগে ফিরতি লেগের ম্যাচে আগামি মঙ্গলবার সালাহ খেলতে পারছেন না।

সালাহর বিদায়ের পর ৮৬ মিনিটে গোল করে লিভারপুলকে জয় এনে দেন অরিজি (৩-২)। খেলা শেষে জয়ের এই নায়ক বলেন, ‘এমন ঘটনা আপনাকে আবেগতাড়িত করবে। সবার জন্যই মৌসুমটি স্পেশাল। কিন্তু খেলোয়াড় হিসেবে এমন পারফর্মেন্সের পর আপনার আলাদা অনুভূতি আসতেই পারে।’

এদিকে টটেনহ্যামও চ্যাম্পিয়ন্স লীগের সেমি-ফাইনালের ফিরতি লেগে মোকাবেলা করবে আয়াক্সের। যদিও প্রথম লেগে ১-০ গোলে পিছিয়ে রয়েছে স্পার্সরা। আগামি বুধবার অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচটি। কিন্তু এর আগে ঘরোয়া আসরে টানা ষষ্ঠ এ্যাওয়ে পরাজয়ের শিকার হল তারা।

হাড্ডাহাড্ডি এই লড়াইয়ে দুই অর্ধে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়তে হয়েছে যথাক্রমে সং হিউন মিন ও হুয়ান ফয়টকে। ফলে ৯ জনের দলে পরিণত হওয়া টটেনহ্যামের বিপক্ষে শেষ মিনিটে জয়সূচক একমাত্র গোলটি করেছেন বোর্নমাউথের মিডফিল্ডার নাথান এক।

এই হারের ফলে তালিকার তৃতীয় অবস্থানে থাকা স্পার্সদের শীর্ষ চারে থেকে আগামি মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন্স লীগে অংশগ্রহণের নিশ্চয়তা পেতে বেড়ে গেল অপেক্ষার প্রহর।

আপনার মতামত লিখুনঃ