এসিড নিক্ষেপের হুমকীতে বিদ্যালয়ে যাওয়া বন্ধ

মিঠাপুকুরে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় ছাত্রীর মামা-ভাইকে মারপিট এসিড নিক্ষেপের হুমকীতে বিদ্যালয়ে যাওয়া বন্ধ
মিঠাপুকুরে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় ছাত্রীর মামা-ভাইকে মারপিট এসিড নিক্ষেপের হুমকীতে বিদ্যালয়ে যাওয়া বন্ধ

মিঠাপুকুর (রংপুর) প্রতিনিধি
মিঠাপুকুরে বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়ার পথে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় দশম শ্রেণির এক ছাত্রীর আতœীয় স্বজনকে মারপিট করেছে বখাটেরা। তাদের অব্যাহত হুমকীতে ৩ দিন ধরে বিদ্যালয়ে যেতে পারছেনা ওই ছাত্রী। বাড়াবাড়ি করলে প্রাণনাশ ও এসিড নিক্ষেপের হুমকিও দিচ্ছে বখাটেরা।

এ ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর অভিযোগ দিয়েছে ওই ছাত্রী। এদিকে, ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন প্রতিষ্ঠানের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ। তিনি গতকাল বুধবার শালিস বৈঠকে ছাত্রীর বাবাকে ডেকে সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেওয়ার চেষ্টা করেছেন। উপজেলার গোপালপুর স্কুল এন্ড কলেজে ঘটনাটি ঘটেছে।
অভিযোগে সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার মিলনপুর ইউনিয়নের গোপালপুর স্কুল এন্ড কলেজে দশম শ্রেণিতে পড়ে মেয়েটি।

বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়ার পথে এলাকার চিহ্নিত বখাটে ইসতিয়াক জিহান অভি, আল আমিন, রুমন মিয়া, শাকিল ও রাকিবুল ইসলাম ওই ছাত্রীকে প্রায়শই উত্যক্ত করত। তাদের কথা না শুনলে প্রাণনাশ ও এসিড নিক্ষেপের হুমকী দেয়। বিষয়টি প্রতিষ্ঠান প্রধানকে জানালে তিনি কোন গুরুত্ব দেননি। ১৫ এপ্রিল ওই ছাত্রী বৈশাখী মেলায় গেলে বখাটেরা উত্যক্ত করে। এর প্রতিবাদ করায় তারা মেয়েটির ভাই, মামা ও খালুকে মারপিট করে। এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার সে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ দেয়।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে বখাটেরা। বখাটেরা এলাকার প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের পক্ষ নেন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শহিদুল ইসলাম। গতকাল বুধবার বিকেলে তিনি ছাত্রীর অভিভাবকদের বিদ্যালয়ে ডেকে আনেন। শালিশী বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আর বাড়াবাড়ি না করার জন্য মেয়ের বাবার কাছে সাদা কাগজে জোরপূর্বক স্বাক্ষর নেওয়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। এদিকে, বখাটেদের হুমকীতে ছাত্রীটি ৩দিন ধরে বিদ্যালয়ে যেতে পারছেনা।

ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শহিদুল ইসলামের সাথে গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বখাটেদের পক্ষ নিয়ে বলেন, ঘটনাটি মিথ্যা। আমাকে তারা জানায়নি। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মামুন ভুঁইয়া বলেন, ঘটনাটি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেওয়ার ব্যাপারে তিনি বলেন, অধ্যক্ষ এ ব্যাপারে শালিস করার এখতিয়ার রাখেন না।