এবার সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ চলছে সুদানে

এবার সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ চলছে সুদানে

তিন মাস ধরে টানা বিক্ষোভের পর সামরিক বাহিনীর সহায়তায় ক্ষমতাচ্যুত হয়েছে সুদানের প্রেসিডেন্ট ওমার আল-বশির। গত বুধবার দিবাগত রাতে সুদানের সেনা কর্মকর্তারা অমর আল-বশিরের রাষ্ট্রীয় বাসভবনে উপস্থিত হয়ে সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে তাকে ক্ষমতাচ্যুত করেন। কিন্তু সুদানের জনগণ বিক্ষোভ থামায়নি। এখন তারা সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করছে।

বিক্ষোভের গণতন্ত্রপন্থি আয়োজকরা নতুন করে বেসামরিক সরকারের দাবি জানিয়েছে। অভ্যুত্থানের পর গত বৃহস্পতিবার দেশজুড়ে কারফিউ জারি করে সুদানের সামরিক বাহিনীর প্রধান জেনারেল আওয়াদ ইবনে আওফ। বশিরকে প্রতিস্থাপনকারী সামরিক পরিষদের প্রধান নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। কিন্তু গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে কয়েক হাজার বিক্ষোভকারী কারফিউ অগ্রাহ্য করে তাদের বিক্ষোভ অব্যাহত রেখেছে। বিক্ষোভের আয়োজক সংগঠনটি সুদানিজ প্রফেশনালস এসোসিয়েসন (এসপিএ) গত বৃহস্পতিবার এক ঘোষণায় সামরিক শাসনের বিরোধিতা করে বেসরকারি সরকারের আহ্বান জানায়।

এক টুইটার পোস্টে সংগঠনটি জানায়, বিক্ষোভকারীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলে, জড়ো হন। সেনাবাহিনীর সদরদফতরের সামনে একদিনের ধর্মঘটে যোগ দিন।
এসপিএ আরও বলেছে, সচল থাকুন ও আপনাদের বিদ্রোহ রক্ষা করুন। এই কারফিউয়ের সঙ্গে সম্মত হওয়া মানে নতুন সামরিক সরকারকে স্বীকৃতি দেওয়া। এদিকে, গত বৃহস্পতিবার বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে হস্তক্ষেপ করে সেনাবাহিনী। সেন্ট্রাল কমিটি অব সুদানিজ ডক্টরস জানিয়েছে, সেনাবাহিনীর হামলায় অন্তত ১৩ জন প্রাণ হারিয়েছে।