ইতিহাসে প্রতিদিন আজ (শুক্রবার) ১৬ আগস্ট’২০১৯

১৯৬০ খ্রীস্টাব্দের এই দিনে ব্যাপক রাজনৈতিক অস্থিরতার পর শেষ পর্যন্ত সাইপ্রাস দ্বীপ স্বাধীনতা লাভ করে৷ এই দ্বীপটি তুরস্কের দক্ষিণে ভুমধ্য সাগরের তীরে অবস্থিত৷ ১৮৭৮ সাল নাগাদ সাইপ্রাস ওসমানীয় সা¤্রাজ্যের অধীনে ছিল৷

কিন্তু ঐ বছরই ওসমানীয় সরকার জার্মানীর বার্লিন কংগ্রেসে সাইপ্রাসকে বৃটিশদের হাতে তুলে দেয় এবং ১৯২৫ সালে সাইপ্রাস বৃটিশদের নিয়ন্ত্রণে চলে যায়৷ ঐ দ্বীপের ৭৫ শতাংশ জনগোষ্ঠী গ্রীক হওয়ায় তারা গ্রীসের সাথে একীভূত হওয়ার দাবী জানায়৷ এর ফলে সাইপ্রাসে রাজনৈতিক উত্তেজনা সৃষ্টি হয় এবং সাংবিধানিক পরিষদ ভেঙ্গে দেয়া হয়৷

অন্যদিকে তুরস্ক সাইপ্রাসের সংখ্যালঘু তুর্কীদের অধিকারের প্রতি সমর্থন জানালে পরিস্থিতি অশান্ত হয়ে ওঠে৷ শেষ পর্যন্ত সাইপ্রাস ইস্যুটি জাতিসঙেঘ উত্থাপিত হয় এবং ১৯৬০ সালের এই দিনে এই দ্বীপটি স্বাধীন দেশের মর্যাদা পায়৷ কিন্তু তারপরও সাইপ্রাস সংকটের অবসান ঘটেনি এবং তুরস্ক ১৯৭৪ সালে হামলা চালিয়ে উত্তরের তুর্কী অধ্যুষিত এলাকার উপর নিজেদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করলে সাইপ্রাস উত্তর ও দক্ষিণ এ দুই অংশে বিভক্ত হয়ে যায়৷

ফার্সী ১৩৬৯ সালের এই দিনে ইরাক-ইরান যুদ্ধের সময় ইরাকের জেলখানায় আটক ইরানী বন্দীদের প্রথম দলটি ইরানের মাটিতে প্রবেশ করে৷ ইরাক ও ইরানের মধ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে গৃহীত ৫৯৮ নম্বর প্রস্তাব বাস্তবায়নের অংশ হিসাবে দুই দেশ বন্দী বিনিময়ের এই পদক্ষেপ নেয়৷

ইরাকের সাবেক প্রেসিডেন্ট সাদ্দাম কুয়েত দখল করার কারণে অত্যন্ত চাপের মধ্যে ছিল৷ এ অবস্থায় সীমান্ত নির্ধারণ বিষয়ক ১৯৭৫ সালে সম্পাদিত আলজিয়ার্স চুক্তি মেনে নিয়ে সাদ্দাম বন্দী বিনিময়ের পাশাপাশি দুদেশের আন্তর্জাতিক সীমানা থেকে পুরোপুরি সরে আসে৷

ইরানের বিরুদ্ধে তৎকালীন ইরাক সরকারের চাপিয়ে দেয়া যুদ্ধ চলাকালে এবং যুদ্ধের পরও ইরানী বন্দীদের উপর সাদ্দামের সেনারা রোমহর্ষক নির্যাতন চালায়৷ অন্যদিকে ইসলামের নীতিমালা অনুযায়ী ইরানে আটক ইরাকী বন্দীদের সাথে মানবীয় আচরণ করা হয়৷ এজন্য ইরাকী বন্দীরা ইরানীদের আন্তরিকতা ও তাদের সুন্দর ব্যবহারে মুগ্ধ হয়ে যায় এবং ইরানে আন্তর্জাতিক রেডক্রসের কাছে আশ্রয় গ্রহণ করে৷

হিজরী ৬৩৯ সালের এই দিনে মুসলিম বিশ্বের খ্যাতনামা ফকিহ, চিকিৎসক ও গণিতবিদ ব্জ€˜ইবনে ইউনুস’ মৃত্যুবরণ করেন ৷ তিনি প্রথমে তার পিতার কাছে লেখাপড়া করেন এবং এরপর সে সময়কার শ্রেষ্ঠ আলেমদের তত্ত্বাবধানে থেকে ধর্মীয় বিষয়ে জ্ঞানার্জন করেন ৷

তার সময়কালটা ছিল মুসলিম সভ্যতায় জ্ঞান-বিজ্ঞানের বিকাশ ও গৌরবের যুগ ৷ ইবনে ইউনুস বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখেন ৷ এই মুসলিম পন্ডিত পড়ালেখা শেষ করে মিশরের রাজধানী কায়রোয় শিক্ষকতা করেন এবং এর পাশাপাশি বেশ কিছু মূল্যবান গ্রন্থও রচনা করেন ৷ ধর্মীয় বিষয়, চিকিৎসা ও গণিতশাস্ত্র ছাড়াও সঙ্গীতের প্রতিও তার বিশেষ ঝোঁক ছিল ৷ আল এসরারুস সালতানিয়া’ তার অন্যতম একটি গ্রন্থ৷

হিজরী ৮৪২ সালের এই দিনে খ্যাতনামা মুসলিম ফকীহ ও সাহিত্যিক ইবনে মারযুক হাফিদ মৃত্যুবরণ করেন ৷ তিনি মিশরের রাজধানী কায়রোসহ আরো কয়েকটি শহরে খ্যাতনামা আলেম ও সাহিত্যিকদের কাছে ধর্মীয় ও সাহিত্য বিষয়ে গভীর জ্ঞানার্জন করেন ৷ আল হাদিকা’ তার হাদিস বিষয়ক অন্যতম একটি মূল্যবান গ্রন্থ৷

ইংরেজদের সূতানুটিতে অস্ত্রাগার নির্মাণের অনুমতি লাভ (১৬৮৭)
বলিভিয়া প্রজাতন্ত্র ঘোষণা (১৮২৫)
কার্ল মার্কসের ক্যাপিটাল গ্রন্থের প্রথম খ- লেখা সমাপ্ত (১৮৬৭)
লর্ড কার্জনের বঙ্গভঙ্গ আইন কার্যকর (১৯০৫)
কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গীতাঞ্জলী প্রকাশিত (১৯১০)
মুসলিম লীগের ডাইরেক্ট এ্যাকশন ডে পালন। কলকাতায় দাঙ্গা শুরু (১৯৪৬)
ব্রিটিশ শাসনমুক্ত হয়ে সাইপ্রাস স্বাধীন রাষ্ট্র ঘোষিত (১৯৬০)
জেনারেল দুংভান মিনকে উৎখাত করে জেনারেল ওগুয়েন দক্ষিণ ভিয়েতনামের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত (১৯৬৪)
বাংলাদেশকে সৌদি আরবের স্বাধীন রাষ্ট্রের স্বীকৃতি (১৯৭৫)
টুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দাফন সম্পন্ন (১৯৭৫)
রাশিয়ার পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষে ভøাদিমির পুতিনকে দেশের নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে অনুমোদন (১৯৯৯)

আপনার মতামত লিখুনঃ