আমেরিকার অতিরিক্ত দাবি কখনোই পূরণ হবে না: জারিফ

আমেরিকার অতিরিক্ত দাবি কখনোই পূরণ হবে না: জারিফ

ইরানের কাছে আমেরিকা যেসব অতিরিক্ত দাবি করছে তা কখনোই পূরণ হবার নয় বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাওয়াদ জারিফ। একইসঙ্গে ২০১৫ সালে ইরানের সঙ্গে স্বাক্ষরিত বহুপক্ষীয় পরমাণু সমঝোতা বা জেসিপিওএ’কে একটি যৌক্তিক চুক্তি হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন তিনি।

ভেনিজুয়েলার রাজধানী কারাকাসের উদ্দেশ্যে যাত্রা করার কিছুক্ষণ আগে ওয়াশিংটনে এক সংবাদ সম্মেলনে জারিফ এসব মন্তব্য করেন। ইরানকে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ কর্মসূচি স্থগিতের পাশাপাশি তেহরানের সঙ্গে একশো বছরের চুক্তি অবসানের ব্যাপারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যে আহ্বান জানিয়েছেন তার প্রতিক্রিয়ায় জারিফ এসব বক্তব্য দেন। জারিফ বলেন, ট্রাম্পের এসব বক্তব্যের মাধ্যমে এটা প্রতিয়মান হচ্ছে যে জেসিপিএএ একটি যৌক্তিক চুক্তি।

তিনি বলেন, যদি ইউরোপের দেশগুলো পরমাণু সমঝোতাকে বাঁচানোর জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে চায় তাহলে তাদের উচিত বিশেষ অর্থনৈতিক ব্যবস্থা ইন্সটেক্সকে বাস্তবায়ন করা। জারিফ বলেন, আমেরিকা পরমাণু সমঝোতা থেকে বের হয়ে যাওয়ার পর ইউরোপ যে ১১টি প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তার সবগুলো বাস্তবায়ন করতে হবে। ইরানের তেল বিক্রি, শিপিং, ব্যাংকিং, বিনিয়োগ এবং বৈজ্ঞানিক সহযোগিতার ব্যাপারে ইউরোপের পক্ষ থেকে যেসব প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছিল সে বিষয়ে তেহরান এখনো অপেক্ষা করছে বলেও জানান জারিফ।

আমেরিকা ও তিন ইউরোপীয় দেশসহ ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে ২০১৫ সালে ইরান যে পরমাণু সমঝোতা সই করেছিল তা থেকে ২০১৮ সালের মে মাসে বেরিয়ে যায় ওয়াশিংটন। এরপর আমেরিকাকে ছাড়াই এ সমঝোতা বাস্তবায়ন করার ঘোষণা দেয় ইউরোপীয় তিন দেশ ব্রিটেন, ফ্রান্স ও জার্মানি। কিন্তু মৌখিক ঘোষণা ছাড়া এসব দেশ এখন পর্যন্ত এ সমঝোতা রক্ষার্থে কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নিতে পারেনি।

অবশ্য এই তিন দেশ গত জানুয়ারি মাসে ইরানের সঙ্গে আর্থিক লেনদেনের জন্য ‘ইন্সটেক্স’ নামের একটি বিশেষ ব্যাংকিং ব্যবস্থা চালু করার ঘোষণা দেয়। কিন্তুসে ব্যবস্থাও এখন পর্যন্ত কার্যকরভাবে চালু হয়নি।

আপনার মতামত লিখুনঃ