আবারো শীর্ষে লিভারপুল

আবারো শীর্ষে লিভারপুল
আবারো শীর্ষে লিভারপুল

এফএনএস স্পোর্টস: সাউথ্যাম্পটনের মাঠে শুরুতেই গোল খেয়ে পয়েন্ট হারানোর শঙ্কায় পড়েছিল লিভারপুল। তবে শেষ দিকে দুর্দান্তভাবে ঘুরে দাঁড়ায় তারা। দারুণ এক গোলে দলকে এগিয়ে নেন মোহামেদ সালাহ। খানিক পর জর্ডান হেন্ডারসনের লক্ষ্যভেদে দুর্দান্ত এক জয় নিয়ে ফিরে ইয়ুর্গেন ক্লপের দল।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে প্রতিপক্ষের মাঠে শুক্রবার রাতে ৩-১ গোলে জিতে পয়েন্ট তালিকায় আবারও শীর্ষে উঠেছে লিভারপুল। সেপ্টেম্বরে লিগের প্রথম পর্বে ঘরের মাঠে ৩-০ গোলে জিতেছিল তারা।

শীর্ষে ওঠার হাতছানিতে মাঠে নামা লিভারপুল ম্যাচের শুরুতেই গোল খেয়ে বসে। সতীর্থের ফ্লিকে বাড়ানো বল ছোট ডি-বক্সের বাইরে ফাঁকায় পেয়ে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে প্লেসিং শটে জাল খুঁজে নেন শেন লং। রিপাবলিক অব আয়ারল্যান্ডের চতুর্থ খেলোয়াড় হিসেবে প্রিমিয়ার লিগে ৫০ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করলেন এই ফরোয়ার্ড।

৩৬তম মিনিটে সমতাসূচক গোলের দেখা পায় লিভারপুল। ডান দিকের বাইলাইন থেকে ট্রেন্ট অ্যালেকজান্ডার-আর্নল্ডের ক্রসে হেডে লক্ষ্যভেদ করেন নাবি কেইতা। গত বছর জুলাইয়ে অ্যানফিল্ডে যোগ দেওয়া গিনির এই মিডফিল্ডার দলটির হয়ে ২৮তম ম্যাচে এসে প্রথম গোলের দেখা পেলেন।

শেষ দিকে গোল পেতে মরিয়া হয়ে প্রতিপক্ষের রক্ষণে প্রচ- চাপ তৈরি করে অতিথিরা। অবশেষে ৮০তম মিনিটে মেলে সাফল্যের দেখা। প্রতি-আক্রমণে হেন্ডারসনের বাড়ানো বল ধরে নিজেদের সীমানা থেকে দ্রুত ছুটে ডি-বক্সে ঢুকেই বাঁ পায়ের শটে পোস্ট ঘেঁষে লক্ষ্যভেদ করেন সালাহ।

লিগে ছয় ম্যাচ পর জালের দেখা পেলেন মিশরের এই ফরোয়ার্ড। এই নিয়ে চলতি লিগে ১৮ গোল নিয়ে গোলদাতার তালিকায় এককভাবে দ্বিতীয় স্থানে বসলেন তিনি।

ছয় মিনিট পর আরেকটি প্রতি-আক্রমণে জয় নিশ্চিত করেন হেন্ডারসন। নিজেদের সীমানা থেকে ডাচ ডিফেন্ডার ভার্জিল ভন ডাইকের লম্বা উঁচু করে বাড়ানো বল দারুণভাবে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে পেনাল্টি স্পটের কাছে পাস দেন রবের্তো ফিরমিনো। আর ছুটে এসে ডান পায়ের শটে স্কোরলাইন ৩-১ করেন ইংলিশ মিডফিল্ডার হেন্ডারসন।

২০১৫ সালের ডিসেম্বরের পর এই প্রথম ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের কোনো এক ম্যাচে গোল করার পাশাপাশি সতীর্থের গোলেও অবদান রাখলেন তিনি।

৩৩ ম্যাচে এই লিভারপুলের টানা চতুর্থ ও সব মিলিয়ে ২৫তম জয়। শীর্ষে ফেরা দলটির পয়েন্ট ৮২। ২ পয়েন্ট কম নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে নেমে গেছে এক ম্যাচ কম খেলা ম্যানচেস্টার সিটি।

৬৪ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে টটেনহ্যাম হটস্পার। ১ পয়েন্ট কম নিয়ে তারপরেই এক ম্যাচ কম খেলা আর্সেনাল।

৩২ ম্যাচ খেলা চেলসির পয়েন্টও আর্সেনালের সমান ৬৩, তবে গোল ব্যবধানে পিছিয়ে পাঁচ নম্বরে আছে মাওরিসিও সাররির দল। ২ পয়েন্ট কম নিয়ে ষষ্ঠ স্থানে আছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

আপনার মতামত লিখুনঃ