আত্নসাৎ হওয়া প্রতিবন্ধী শিক্ষা উপবৃত্তির টাকা উদ্ধার করে বন্ঠন করলেন ববি

আত্নসাৎ হওয়া প্রতিবন্ধী শিক্ষা উপবৃত্তির টাকা উদ্ধার করে বন্ঠন করলেন ববি
আত্নসাৎ হওয়া প্রতিবন্ধী শিক্ষা উপবৃত্তির টাকা উদ্ধার করে বন্ঠন করলেন ববি

সদর( রংপুর) প্রতিনিধিঃ
রংপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান নাছিমা জামান ববি আতœসাৎ হওয়া ছয়জন প্রতিবন্ধীর শিক্ষা উপবৃত্তির ৫৬ হাজার টাকা উদ্ধার করে বন্ঠন করছেন।

গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সদর উপজেলা পরিষদ কার্যালয়ে এ টাকা ছয় প্রতিবন্ধীদের পিতা মাতার উপস্থিতিতে বন্ঠন করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ইসরাত সাদিয়া সুমী, ভাইস চেয়ারম্যান মাসুদার রহমান মিলন, ভাইস চেয়ারম্যান কাজলী বেগম, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা গোলাম রব্বানী, প্রকল্প কর্মকর্তা আব্দুল মতিন, উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার শিখা রানী প্রমুখ।

জানা গেছে, তুহীন, সোয়েব, শাকিলা, টুম্পা, অন্তর ও কাজল নামের ছয় প্রতিবন্ধীর শিক্ষা উপবৃত্তির টাকা রুহুল আমি বাবু নামের অন্য এক প্রতিবন্ধী ভয়ভীতি দেখিয়ে মিথ্যা কথা বলে নিজের পকেটস্থ করার জন্য গত কয়েকদিন আগে আত্নসাৎ করেন।

বিষয়টি তারা লিখিত ভাবে উপজেলা চেয়ারম্যান নাছিমা জামান ববিকে জানালে তিনি দ্রুততার সাথে ছয়জন প্রতিবন্ধীর শিক্ষা উপবৃত্তির টাকা আত্সাৎ কারী রুহুল আমিন বাবুর নামে থানায় অভিযোগ করেন।

পুলিশ মমিনপুর ইউনিয়নের কুর্শা বলরাম পুর এলাকায় বাবুর বাসায় গেলে টনক নড়ে পরিবারে। গতকাল মঙ্গলবার নিরুপায় হয়ে বাবু ৮৫ হাজার টাকাসহ উপজেলা চেয়ারম্যানের কাছে পিতা ও চাচাসহ হাজির হয়।

পরে মধ্যস্থতার মাধ্যমে ৫৬ হাজার ৮৫০ টাকা ছয় প্রতিবন্ধীকে ফেরত প্রদান করেন। বাকী ২৮ হাজার ১৫০ টাকা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে জমা রাখা হয়।

এদিকে, রংপুরের জেলা প্রশাসক আসিব আহসান সংবাদটি জানার পর উপজেলা চেয়ারম্যান ববিকে ধন্যবাদ জানান এবং টাকা আত্নসাৎকারী চক্রটির বিরুদ্ধে পদক্ষেপ গ্রহনে উদ্যোগ নেয়ার আশ্বাস প্রদান করেন।

এ ব্যাপারে কথা হলে রংপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান নাছিমা জামান ববি বলেন, বিধাব ভাতা , বয়স্ক ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা আত্নসাৎ কারী একটি চক্র আমার উপজেলায় সক্রিয় রয়েছে।

এবার ধরা খেয়েছে একটি চক্র। আমরা সকল চক্রকে ধারার জন্য মাঠে নেমেছি। যাতে গরীবের টাকা কেউ মেরে খেতে না পারে।